/* */
   Monday,  Dec 17, 2018   11:38 AM
Untitled Document Untitled Document
শিরোনাম: •স্বাধীনতা সার্বভৌমত্ব রক্ষায় সজাগ থাকতে সেনা কর্মকর্তাদের প্রতি রাষ্ট্রপতির আহ্বান •মনোনয়ন বাতিলের বিরুদ্ধে খালেদা জিয়ার আপিল ইসিতে খারিজ •মনোনয়ন না পাওয়া দলের প্রার্থীদের মহাজোট প্রার্থীর পক্ষে প্রার্থিতা প্রত্যাহারের অনুরোধ শেখ হাসিনার •নির্বাচনী প্রচারণায় ট্রাম্পকে ‘রাজনৈতিক’ সহযোগিতার প্রস্তাব দেয় রাশিয়া •টেকনোক্রেট কোন মন্ত্রী কেবিনেটে থাকছেন না : ওবায়দুল কাদের •বেগম রোকেয়া দিবস কাল •আগামীকাল থেকে ওয়েস্ট ইন্ডিজ . বাংলাদেশ। ওয়ানডে সিরিজ
Untitled Document

Sk. Abul Hasan : (২০১৩-০৫-১৫ ০৬:১০:২০)

পিপিপি ও এমকিউএমের নেতারা বলছেন, বিরোধীদলীয় নেতা হিসেবে কাকে সমর্থন দেওয়া হবে, সে বিষয়ে বলার সময় এখনো আসেনি। কারণ, নির্বাচনের ফলাফল আনুষ্ঠানিকভাবে ঘোষিত হয়নি এবং দলগুলোও নিজেদের মধ্যে এ বিষয়ে আলোচনা করেনি।
এর আগে ইমরান পিপিপির সরকারের প্রধান ও মন্ত্রীদের বিরুদ্ধে ব্যাপক পরিমাণ দুর্নীতির অভিযোগ তুলেছিলেন। তিনি ঘোষণা করেছিলেন, প্রধানমন্ত্রী নির্বাচিত হওয়ার পর যদি প্রেসিডেন্ট আসিফ আলী জারদারির কাছ থেকে শপথ নিতে হয়, তবে তিনি সে পদ নেবেন না। এমকিউএমকে ইমরান ‘সন্ত্রাসী’ দল হিসেবে অভিহিত করেছিলেন।
রাজনৈতিক বিশ্লেষকেরা বলছেন, ইমরান হয়তো তাঁর প্রতিশ্রুতি ও বিশ্বাসযোগ্যতা বজায় রাখতে বিরোধী দলের নেতার পদ নেবেন না। তবে জাতীয় পরিষদের গুরুত্বপূর্ণ পদটিতে অবস্থান করে রাজনৈতিক সুবিধা নেওয়ার জন্য ইমরান পিপিপি, এমকিউএম বা জমিয়ত উলামা-ই-ইসলামের সঙ্গে আপস করতেও পারেন। কারণ, দেশটিতে বিরোধী দলের নেতার পদকে প্রধানমন্ত্রীর পরের পদের মর্যাদা দেওয়া হয়।
এদিকে পিপিপির নেতা সৈয়দ খুরশিদ শাহ বিরোধীদলীয় নেতা হতে পারেন বলে ধারণা করা হচ্ছে। পিপিপির এক নেতা ‘দ্য ডন’কে বলেছেন, নির্বাচনে ভরাডুবির পর পার্লামেন্টে বিরোধী দল হিসেবে প্রতিষ্ঠিত হওয়ার সুযোগ হাতছাড়া করতে চাইবে না তাঁর দল। তিনি বলেন, গত পার্লামেন্টে পিপিপির চিফ হুইপ ছিলেন খুরশিদ শাহ, আর এ মুহূর্তে তিনিই বিরোধীদলীয় নেতা হিসেবে সবচেয়ে জনপ্রিয় হবেন। তবে দলটির আরেক নেতা মাখদুম আমিন ফাহিমও এ পদে দলের সমর্থন পেতে পারেন।


Untitled Document
  • সর্বশেষ সংবাদ
  • সবচেয়ে পঠিত
  • এক্সক্লুসিভ

Top
Untitled Document