/* */
   Friday,  Jun 22, 2018   7 PM
Untitled Document Untitled Document
শিরোনাম: •সিসিলিতে ৫২২ অভিবাসী নিয়ে ইতালির উপকূলরক্ষী জাহাজের অবতরণ •সরকারের উন্নয়নমূলক কর্মকান্ড সম্পর্কে তুলে ধরতে গণমাধ্যমের প্রতি তথ্য সচিবের আহ্বান •বিশেষ অর্থনৈতিক অঞ্চলে ১ কোটি মানুষের কর্মসংস্থান হবে : প্রধানমন্ত্রী •মানবসম্পদ উন্নয়নে জাপান ৩৪ কোটি টাকার অনুদান দেবে •সৌদি আরবকে হারিয়ে রাশিয়াকে নিয়ে শেষ ষোলোতে উরুগুয়ে •গণভবনে মহিলা ক্রিকেটারদের প্রধানমন্ত্রীর সংবর্ধনা •প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে নির্বাচনকালীন সরকার অক্টোবরে গঠিত হতে পারে : ওবায়দুল কাদের
Untitled Document

৬ দেশে চলবে যাত্রীবাহী জাহাজ বাংলাদেশ থেকে

তারিখ: ২০১৫-০৬-০৩ ০০:৪৯:০৭  |  ২২৯ বার পঠিত

0 people like this
Print Friendly and PDF
« আগের সংবাদ পরের সংবাদ»

ডেস্ক রিপোর্ট বাংলাদেশ থেকে  উপকূলবর্তী ছয় দেশে ও বঙ্গোপসাগরের বিভিন্ন এলাকায় জাহাজে যাতায়াত করতে পারবেন যাত্রীরা। বছরে ৩২০ দিন সমুদ্র উপকূলবর্তী দেশগুলোতে মোট ১০০ দিন ট্রিপ দেবে যাত্রীবাহী জাহাজ।

 

মঙ্গলবার বিকেলে সচিবালয়ে নৌপরিবহণ মন্ত্রণালয়ের সম্মেলনকক্ষে  বাংলাদেশ শিপিং করপোরেশন (বিএসসি) ও আফরোজ শিপিং লাইনের মধ্যে এ বিষয়ে একটি সমঝোতা স্মারক সই হয়।

 

এ চুক্তির ফলে বাংলাদেশ থেকে সৌদি আরব, মালদ্বীপ, শ্রীলঙ্কা, সিঙ্গাপুর, মালয়েশিয়া, থাইল্যান্ড ও বঙ্গোপসাগরের বিভিন্ন এলাকায় যাতায়াত করতে পারবে যাত্রীবাহী জাহাজ। চলতি বছর থেকেই এ বিষয়ে প্রাথমিক কার্যক্রম শুরু হবে। ২০১৬ সালে  জাহাজ কিনবে আফরোজ শিপিং লাইন। ২০১৮ সাল থেকে  যাত্রীরা জাহাজে করে সমুদ্র উপকূলবর্তী দেশগুলো ভ্রমণ করতে পারবেন। ২০২০ সালে বাংলাদেশ এ ক্ষেত্রে বড় একটি সমুদ্রশক্তি হিসেবে পরিচিত পাবে। জাহাজগুলো একই সঙ্গে প্রমোদতরী ও যাত্রীবাহী জাহাজের ভূমিকায় থাকবে। অনেকেই এতে আগ্রহী হবে বলে চুক্তি সই অনুষ্ঠানে জানানো হয়।

 

অনুষ্ঠানে  প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন নৌপরিবহণমন্ত্রী শাজাহান খান। বিএসসির  ব্যবস্থাপনা পরিচালক কমোডর হাবিবুর রহমান ভূঁইয়া এবং আফরোজ শিপিং লাইনের ব্যবস্থাপনা পরিচালক শাহ মমিনুল ইসলাম চৌধুরী নিজ নিজ প্রতিষ্ঠানের পক্ষে সমঝোতা স্মারকে সই করেন।

 

অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন  নৌপরিবহণ মন্ত্রণালয়ের সচিব শফিক আলম মেহেদী ও বাংলাদেশে নিযুক্ত ব্রিটিশ ডেপুটি হাইকমিশনার মার্ক ক্লাটন।

 

এ সময় শাহজাহান খান বলেন,  ‘একসময় নৌপথে হজে যাওয়ার পরিস্থিতি তৈরি হবে। বাংলাদেশের অর্থনৈতিক অগ্রগতিতে এ উদ্যোগ নতুন একটি সম্ভাবনা। এ সমঝোতার ফল অবশ্যই ভালো হবে।এটি একটি ঐতিহাসিক সমঝোতা।’

 

এ ক্ষেত্রে পাশের দেশ ভারতও সঙ্গে থাকবে বলে জানান নৌমন্ত্রী।

 


এ পাতার অন্যান্য সংবাদ

•২০২৪ সাল পর্যন্ত রাশিয়ার উন্নয়ন পরিকল্পনা ‘মে ডিক্রি’ স্বাক্ষর পুতিনের •ইসরায়েলি সৈন্যকে চড় মেরে ঝড় তুলেছে ফিলিস্তিনি এক কিশোরী •মেক্সিকোর জন্যে সবচেয়ে রক্তক্ষয়ী বছর ২০১৭ •ইসরাইল-ফিলিস্তিন সমঝোতা প্রক্রিয়া পুনরায় শুরু করতে জাতিসংঘে রাশিয়ার আহবান •রোহিঙ্গা সংকটের টেকসই সমাধানে নমপেনের সহযোগিতা কামনা ঢাকার •মিয়ানমার রোহিঙ্গাদের ফেরত নিতে সম্মত •বাংলাদেশে পালিয়ে আসা রোহিঙ্গা নারী: “আঁর পোয়াইন্দার বাপ ইঞ্জিনিয়ার আছিল” •বাবা-মাকে ছাড়াই বাংলাদেশে তেরোশো রোহিঙ্গা শিশু
Untitled Document
  • সর্বশেষ সংবাদ
  • সবচেয়ে পঠিত
  • এক্সক্লুসিভ

Top
Untitled Document