/* */
   Thursday,  Jun 21, 2018   4 PM
Untitled Document Untitled Document
শিরোনাম: •সিসিলিতে ৫২২ অভিবাসী নিয়ে ইতালির উপকূলরক্ষী জাহাজের অবতরণ •সরকারের উন্নয়নমূলক কর্মকান্ড সম্পর্কে তুলে ধরতে গণমাধ্যমের প্রতি তথ্য সচিবের আহ্বান •বিশেষ অর্থনৈতিক অঞ্চলে ১ কোটি মানুষের কর্মসংস্থান হবে : প্রধানমন্ত্রী •মানবসম্পদ উন্নয়নে জাপান ৩৪ কোটি টাকার অনুদান দেবে •সৌদি আরবকে হারিয়ে রাশিয়াকে নিয়ে শেষ ষোলোতে উরুগুয়ে •গণভবনে মহিলা ক্রিকেটারদের প্রধানমন্ত্রীর সংবর্ধনা •প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে নির্বাচনকালীন সরকার অক্টোবরে গঠিত হতে পারে : ওবায়দুল কাদের
Untitled Document

যেভাবে কর্মক্ষেত্রে চাপমুক্ত থাকবেন

তারিখ: ২০১৫-০৬-০৬ ২২:৪৫:৩৮  |  ২৪৯ বার পঠিত

0 people like this
Print Friendly and PDF
« আগের সংবাদ পরের সংবাদ»
বাংলার বর্ণমালা  ডেস্ক   কর্মক্ষেত্রে কাজের চাপের পাশাপাশি পড়াশোনা, সাংসারিক চিন্তা ভাবনা, পলিটিক্স ও অন্যের ব্যক্তিগত জীবনে হস্তক্ষেপসহ নানা বিষয় নিয়ে মনের উপর চাপ তৈরি হতে পারে। এই চাপ সামলানো আমাদের জন্য বেশ কঠিন হয়ে যায়।

 


নিজের জীবনের নানারকম মানসিক চাপের পাশাপাশি এই চাপটি আরও বেশি যন্ত্রণার উদ্রেক করে। কর্মক্ষেত্রে টিকে থাকতে গেলে এইসব চাপ আপনাকে কিছুটা সহ্য তো করতেই হবে। কিন্তু আপনি কতটুকু গুরুত্ব দেবেন তা নির্ভর করছে আপনার উপরই।

 


মানসিক চাপের লক্ষণ হিসেবে দেখা দেয় ঘুম না হওয়া, কাজে মন বসাতে না পারা, দুশ্চিন্তা, মানসিক অস্থিরতা প্রভৃতি। এগুলো শারীরিক ও মানসিক ক্ষতি করে। তাই চাপ সামলাতে পারাটা খুব গুরুত্বপূর্ণ। কর্মক্ষেত্রে কীভাবে কমাবেন মানসিক চাপ? নিচে চাপমুক্ত থাকার কিছু কৌশল তুলে ধরা হলো।

 


শান্ত থাকুন: যেকোনো পরিস্থিতিতে শান্ত থাকার চেষ্টা করুন। আপনি যদি ছোটো থেকে বড় সকল ব্যাপারেই অতিরিক্ত অস্থির হয়ে পড়েন তাহলে ক্ষতি আপনারই। আর আপনি যতোবেশি অস্থির হবেন আপনার আশপাশের মানুষ আপনাকে ততবেশি ফাঁদে ফেলতে সক্ষম হবেন। তাই অতিরিক্ত অস্থির না হয়ে শান্ত থাকুন। ঠাণ্ডা মাথায় ভেবে-চিন্তে পা ফেলুন।

 


যৌক্তিক কাজ করুন: রাগ, ক্ষোভ ও দুঃখ মানুষের বোঝার ক্ষমতা এবং বিবেচনা করার ক্ষমতাও নষ্ট করে ফেলতে পারে। এতে করে অযৌক্তিক কাজই বেশি করা হয়ে যায়। এই সমস্যায় জড়াবেন না একেবারেই। যতো কষ্ট বা রাগই উঠুক না কেন নিজের নৈতিকতাকে বিসর্জন দেবেন না একেবারেই। যৌক্তিক দিকগুলো বিবেচনায় আনুন এবং সেভাবে কাজ করুন।

 


ব্যক্তিগত জীবন এবং কর্মক্ষেত্র আলাদা রাখুন: নিজের ব্যক্তিগত জীবনের কোনো কিছুই কর্মক্ষেত্রের কারোও সঙ্গে শেয়ার করবেন না ভুলেও। অধিকাংশ ক্ষেত্রে দেখা যায়, আপনি বিশ্বাস করে কাউকে কিছু বললে সেটা আপনার আড়ালে ছড়িয়ে পড়বে। এতে আপনার মানসিক চাপ আরও বেশি বাড়িয়ে তুলবে। তাই এই দুটি জীবন আলাদা রাখার চেষ্টা করুন, চাপটা আপনাআপনিই কমে আসবে।

 


সহকর্মীদের ব্যাপারে সতর্ক থাকুন: ভালো বন্ধুত্ব এবং সুসম্পর্ক বজায় থাকলেও জীবনের সবকিছু সহকর্মীদের কাছে প্রকাশ করে দেবেন না এবং নেতিবাচক সহকর্মীদের কাছ থেকে যতোটা সম্ভব দূরে থাকার চেষ্টা করুন। স্বাভাবিকভাবে সম্পর্ক রাখুন কিন্তু কখনই অতিরিক্ত মিশতে যাবেন না।

 


চা পান করুন: মানসিক চাপ কমাতে কার্যকরী ভূমিকা পালন করে চা। তাই চাপ কমাতে চা পান করতে পারেন। তবে খুব বেশি চা পান করার অভ্যস না করাই ভালো।

 


এ পাতার অন্যান্য সংবাদ

•বাংলাদেশের ঢাকায় কিভাবে কাটে তরুণীদের অবসর সময়? •বেশি ঘাম হলে মেনে চলুন কিছু টিপস •'রুয়েটের দুই মেধাবী বন্ধু প্রাণীজগতকে ক্যামেরায় বন্দির অদ্ভুত কাণ্ডকীর্তি রহস্য' •ওজন বাড়ানোর সহজ উপায় •কর্মীদের যৌন হেনস্থার ঘটনা চেপে রাখতে চায় অনেক প্রতিষ্ঠান? • ধূমপান ও মদ্যপানের নেশা ত্বকের ক্ষতি করতে পারে নানাভাবে • গরমে সবজি ও ফলমূল দিয়ে তৈরি করে নিন শরবত। • ৬টি মেয়েলি অভ্যাস পুরুষের , যা ধরিয়ে দিলেই রেগে যায়
Untitled Document
  • সর্বশেষ সংবাদ
  • সবচেয়ে পঠিত
  • এক্সক্লুসিভ

Top
Untitled Document