/* */
   Wednesday,  Dec 19, 2018   5 PM
Untitled Document Untitled Document
শিরোনাম: •স্বাধীনতা সার্বভৌমত্ব রক্ষায় সজাগ থাকতে সেনা কর্মকর্তাদের প্রতি রাষ্ট্রপতির আহ্বান •মনোনয়ন বাতিলের বিরুদ্ধে খালেদা জিয়ার আপিল ইসিতে খারিজ •মনোনয়ন না পাওয়া দলের প্রার্থীদের মহাজোট প্রার্থীর পক্ষে প্রার্থিতা প্রত্যাহারের অনুরোধ শেখ হাসিনার •নির্বাচনী প্রচারণায় ট্রাম্পকে ‘রাজনৈতিক’ সহযোগিতার প্রস্তাব দেয় রাশিয়া •টেকনোক্রেট কোন মন্ত্রী কেবিনেটে থাকছেন না : ওবায়দুল কাদের •বেগম রোকেয়া দিবস কাল •আগামীকাল থেকে ওয়েস্ট ইন্ডিজ . বাংলাদেশ। ওয়ানডে সিরিজ
Untitled Document

ভারতীয় বাহিনীর ওপর নজরদারি

তারিখ: ২০১৫-০৭-১২ ১২:২৪:৪৬  |  ২৬৮ বার পঠিত

0 people like this
Print Friendly and PDF
« আগের সংবাদ পরের সংবাদ»

নিউজ ডেস্টক: সীমান্তে ভারতীয় বাহিনীর ওপর নজরদারির কোনও সুযোগই ছাড়ছে না পাকিস্তান। সীমান্তে মানবহীন বিমান (ইউএভি) চালিয়ে বা গোপন ক্যামেরা বসিয়ে চরবৃত্তি চালাচ্ছে পাকিস্তান। এ কথা জানিয়েছেন ভারতীয় সীমান্ত রক্ষী বাহিনীর (বিএসএফ) এক কর্মকর্তা।

রাজস্থান সীমান্তের বিএসএফ ডিআইজি রবি গাঁধী জানিয়েছেন, ভারতীয় বাহিনীর ওপর নজরদারি চালাতে প্রযুক্তির ব্যবহার করছে পাকিস্তান। তবে ভারতের আপত্তির পর সেই পথ থেকে আপাতত সরে দাঁড়িয়েছে তারা। কিন্তু পাকিস্তানের এই ধরনের কৌশল সম্পর্কে আরও কিছু উদ্বেগ রয়ে গিয়েছে বলেও জানিয়েছেন তিনি।

গত এপ্রিলেই সীমান্ত সংলগ্ন পাকিস্তানের এলাকায় আকাশের ১৫০ থেকে ৪০০ মিটার উঁচুতে একটি আলোর ঘোরাফেরা নজরে আসে বিএসএফ জওয়ানদের। গাঁধী জানিয়েছেন, আমরা অনুমান করেছিলাম, সেটি ড্রোন বা ইউএভি হতে পারে। পাক রেঞ্জার্সের সঙ্গে বৈঠকে বিষয়টি উল্লেখ করে প্রতিবাদ জানানো হয়। এরপর ওই নজরদারি বন্ধ হয়।

তিনি জানিয়েছেন, কিন্তু এরপর আন্তর্জাতিক নিয়মনীতির থোড়াই কেয়ার করে ভারতীয় সীমায় চরবৃত্তি করতে পশ্চিম সীমান্তে সিসিটিভি ক্যামেরা বসাতে শুরু করে পাকিস্তান। ভারতের সঙ্গে আন্তর্জাতিক সীমানার ২০০-৩০০ মিটার দূরে নিজেদের এলাকায় সিসিটিভি ক্যামেরা বসায় পাকিস্তান। বিষয়টি নিয়ে ভারতের তীব্র আপত্তির পরিপ্রেক্ষিতে পাকিস্তান এ ক্ষেত্রেও পিছু হঠেছে বলে জানিয়েছেন গাঁধী। তিনি বলেছেন, বাড়মের, জয়সলমীর, বিকানীর এবং শ্রীগঙ্গানগর জেলা বরাবর সীমান্ত এলাকায় বেশ কয়েকটি ভারতীয় সেনা ঘাঁটিগুলির সামনে সিসিটিভি বসায় পাকিস্তান। ভারতের আপত্তিতে পাকিস্তান পিছু হঠলেও এখনও কয়েকটি ক্যামেরা রয়ে যেতে পারে।

জানা গিয়েছে, ১৫ ফুট উঁচু পোলের ওপর ক্যামেরা বসানো হয়। কিছু ক্যামেরা আবার ঝোপেঝাড়েও বসানো হয়। ওই ক্যামেরাগুলিতে চিনা প্রযুক্তি ব্যবহার করা হয়। প্রতিটি পোলে সোলার প্যানেল লাগানো হয়।

আন্তর্জাতিক নিয়ম অনুসারে, সীমান্তের ৫০০ মিটার পর্যন্ত এলাকায় কোনও ক্যামেরা বা এ ধরনের অন্য কোনও কিছু ব্যবহার করা যায় না। কিন্তু পাকিস্তান সেই নিয়ম মানছে না।

এ ব্যাপারে এক পুলিশ কর্মকর্তার আশঙ্কা, রাতের অন্ধকারে ভারতে মাদক ও অস্ত্র পাচারকারীদের অনুপ্রবেশ করানোর লক্ষ্য পাকিস্তানের থাকতে পারে। এজন্য ভারতীয় বাহিনীর গতিবিধির ওপর নজরদারি চালানোর চেষ্টা করছে তারা। সূত্র : এপিবিলাইভ


এ পাতার অন্যান্য সংবাদ

•দ. কোরিয়ার অর্থমন্ত্রী ও প্রধান নীতি নির্ধারক বরখাস্ত •যুক্তরাষ্ট্রের মধ্যবর্তী নির্বাচনের পর ট্রাম্পের প্রশংসা জাপানের অ্যাবের •সৌদি আরবে পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খানের প্রথম বিদেশ সফর •২০২৪ সাল পর্যন্ত রাশিয়ার উন্নয়ন পরিকল্পনা ‘মে ডিক্রি’ স্বাক্ষর পুতিনের •মেক্সিকোর জন্যে সবচেয়ে রক্তক্ষয়ী বছর ২০১৭ •ইসরাইল-ফিলিস্তিন সমঝোতা প্রক্রিয়া পুনরায় শুরু করতে জাতিসংঘে রাশিয়ার আহবান •রোহিঙ্গা সংকটের টেকসই সমাধানে নমপেনের সহযোগিতা কামনা ঢাকার •মিয়ানমার রোহিঙ্গাদের ফেরত নিতে সম্মত
Untitled Document
  • সর্বশেষ সংবাদ
  • সবচেয়ে পঠিত
  • এক্সক্লুসিভ

Top
Untitled Document