/* */
   Friday,  Sep 21, 2018   7 PM
Untitled Document Untitled Document
শিরোনাম: •পবিত্র আশুরা উপলক্ষে নিশ্ছিদ্র নিরাপত্তা ব্যবস্থা নেয়া হয়েছে : আছাদুজ্জামান মিয়া •বান্দরবানে কৃষি ব্যাংকের উদ্যোগে সিংগেল ডিজিট সুদে ঋণ বিতরণ •সৌদি আরবে পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খানের প্রথম বিদেশ সফর •জাতিসংঘ অধিবেশনে যোগদিতে শুক্রবার প্রধানমন্ত্রীর লন্ডনের উদ্দেশে ঢাকা ত্যাগ •রোহিঙ্গা বসতিতে কক্সবাজারের জীববৈচিত্র্য হুমকির মুখে : ইউএনডিপি •মর্যাদার লড়াইয়ে আজ মুখোমুখি ভারত ও পাকিস্তান •সংসদে জাতীয় দক্ষতা উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ বিল, ২০১৮ পাস
Untitled Document

ঈদে সাকল্যে পাঁচ চলচ্চিত্র

তারিখ: ২০১৫-০৭-১৬ ১১:৫১:১৮  |  ২২৭ বার পঠিত

0 people like this
Print Friendly and PDF
« আগের সংবাদ পরের সংবাদ»

বিনোদন ডেস্ক: চলচ্চিত্রের জন্য সর্বশেষ অর্থবছরও তেমন কোনো উল্লেখযোগ্য সময় হয়ে উঠল না। অল্প সংখ্যক চলচ্চিত্র মুক্তি আর ভারতীয় চলচ্চিত্র আমদানি ইস্যু নিয়ে নানা বক্তব্যের মধ্য দিয়েই শেষ হলো বছরটি। এছাড়া বিগ বাজেটে নির্মিত এ ছবিগুলোর কোনোটিই আশানুরূপ ব্যবসা করতে পারেনি। সব মিলিয়ে বরাবরের মতো চলচ্চিত্র নির্মাতাদের শেষ ভরসা হয়ে আছে শুধু আসন্ন ঈদ। ক্ষতির আশঙ্কা কম থাকায় ঈদকে ঘিরেই তারা চলচ্চিত্র নির্মাণের পরিকল্পনা করেন। এ ধারাবাহিকতায় আসন্ন ঈদে তিনটি ছবি মুক্তি পাচ্ছে। এর মধ্যে শাহিন সুমন পরিচালিত ও শাকিব-অপু অভিনীত ‘লাভ ম্যারেজ’, ইফতেখার চৌধুরী পরিচালিত ও মাহিয়া মাহি-ওম অভিনীত ‘অগ্নি টু’, তন্ময় তানসেন পরিচালিত ও বিদ্যা সিনহা মীম-ইমন অভিনীত ‘পদ্ম পাতার জল’ ছবিগুলো সেন্সরবোর্ড থেকে ছাড়পত্র পেয়েছে। তবে মুক্তির কথা থাকলেও কারিগরি সমস্যার কারণে মুক্তি পাচ্ছে না এস এ হক অলিক পরিচালিত ‘আরো ভালোবাসবো তোমায়’ চলচ্চিত্রটি।

এদিকে পদ্ম পাতার জল ছবিটির প্রচার-প্রচারণাও শুরু গেছে বেশ আগে থেকেই। আর সেন্সরবোর্ড থেকে সর্বশেষ ছাড়পত্র পাওয়া অগ্নি টুর কলাকুশলীরাও রয়েছে প্রচার-প্রচারণার কাজে ব্যস্ত। তবে লক্ষণীয় ব্যাপার হলো, তুলনামূলকভাবে এ বছর ঈদে মুক্তির দৌড়ে অনেকটাই পিছিয়ে শাকিব খান অভিনীত ছবি। এবারের ঈদে শাকিব খান অভিনীত দুটি ছবি মুক্তি পাওয়ার কথা থাকলেও এখন পর্যন্ত শুধু লাভ ম্যারেজ সম্পর্কেই নিশ্চিত হওয়া গেছে। অথচ ২০০৬ সাল থেকে ২০১৪ সাল পর্যন্ত রোজার ঈদে মুক্তি পাওয়া সিনেমাগুলোর পরিসংখ্যান দেখলেই নিরূপণ সম্ভব শাকিব খান অভিনীত সিনেমাগুলোই সবচেয়ে বেশি ব্যবসাসফল হয়েছে। এর মধ্যে উল্লেখযোগ্য হলো— ঢাকাইয়া পোলা বরিশাইলা মাইয়া (২০০৬), তোমার জন্য মরতে পারি (২০০৭), এক টাকার বউ (২০০৮), মায়ের হাতে বেহেশতের চাবি (২০১০), নাম্বার ওয়ান শাকিব খান (২০১০), টাইগার নাম্বার ওয়ান (২০১১), খোদার পরে মা (২০১২), মাই নেম ইজ খান (২০১৩), হিরো দ্য সুপারস্টার (২০১৪)।

অন্যদিকে ইমপ্রেস টেলিফিল্মের ব্যানারে মুক্তি পেতে যাচ্ছে ‘অমি ও আইসক্রিমওয়ালা’ এবং ‘নদীজন’ নামের দুটি চলচ্চিত্র। অমি ও আইসক্রিমওয়ালা নির্মাণ করেছেন সুমন ধর এবং নদীজন নির্মাণ করেছেন শাহনেওয়াজ কাকলী।

ঈদ মানেই নতুন সিনেমা, প্রেক্ষাগৃহ ভরা দর্শক। যুগ যুগ ধরে এ দেশের চলচ্চিত্র সংস্কৃতির দিকে তাকালে এমন চিত্রই দৃশ্যমান। বিশেষ করে নব্বইয়ের দশকের দিকে ঈদের সময় প্রায় ২০টিরও বেশি চলচ্চিত্র একযোগে মুক্তি পেয়েছে। অথচ নানা কারণে সেই চিত্র ক্রমেই বদলেছে, কমেছে প্রেক্ষাগৃহের সংখ্যা সেই সঙ্গে আশঙ্কাজনক হারে কমেছে চলচ্চিত্র নির্মাণের সংখ্যাও। ফলে ঈদকে কেন্দ্র করে মুক্তি পাওয়া চলচ্চিত্র নিয়ে সংশ্লিষ্টদের অনাগ্রহই দর্শকদের প্রেক্ষাগৃহবিমুখ করছে। একই সঙ্গে হারিয়ে যাচ্ছে ঈদকে উপলক্ষ করে গড়ে ওঠা চলচ্চিত্র সংস্কৃতিও।


এ পাতার অন্যান্য সংবাদ

•জাতীয় পার্টিতে যোগ দিলেন শাফিন আহমেদ •জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার প্রদান করা হবে ৮ জুলাই •রাজনীতিতে এলেন তামিল সুপারস্টার রজনীকান্ত •অপু বিশ্বাসকে তালাকনামা পাঠিয়েছেন শাকিব খান •দেশের ইতিহাস সংস্কৃতিকে তুলে ধরে উন্নত ধারার চলচ্চিত্র নির্মাণ করুন : প্রধানমন্ত্রী •জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার প্রাপ্ত শ্রেষ্ঠ গীতিকার আমিরুলের স্বপ্ন ছোঁয়ার গল্প •সংস্কৃতিচর্চাই আমৃত্যু মনোবলে বলিয়ান বর্ষিয়ান নাট্যপুরুষ নান্নু' •বাংলাদেশের জনপ্রিয় শিল্পী লাকী আখন্দের মৃত্যু
Untitled Document
  • সর্বশেষ সংবাদ
  • সবচেয়ে পঠিত
  • এক্সক্লুসিভ

Top
Untitled Document