/* */
   Friday,  Jun 22, 2018   10 PM
Untitled Document Untitled Document
শিরোনাম: •সিসিলিতে ৫২২ অভিবাসী নিয়ে ইতালির উপকূলরক্ষী জাহাজের অবতরণ •সরকারের উন্নয়নমূলক কর্মকান্ড সম্পর্কে তুলে ধরতে গণমাধ্যমের প্রতি তথ্য সচিবের আহ্বান •বিশেষ অর্থনৈতিক অঞ্চলে ১ কোটি মানুষের কর্মসংস্থান হবে : প্রধানমন্ত্রী •মানবসম্পদ উন্নয়নে জাপান ৩৪ কোটি টাকার অনুদান দেবে •সৌদি আরবকে হারিয়ে রাশিয়াকে নিয়ে শেষ ষোলোতে উরুগুয়ে •গণভবনে মহিলা ক্রিকেটারদের প্রধানমন্ত্রীর সংবর্ধনা •প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে নির্বাচনকালীন সরকার অক্টোবরে গঠিত হতে পারে : ওবায়দুল কাদের
Untitled Document

ফোরকান মল্লিকের মৃত্যুদণ্ড

তারিখ: ২০১৫-০৭-১৬ ১১:৫৩:২৮  |  ৩৪৫ বার পঠিত

0 people like this
Print Friendly and PDF
« আগের সংবাদ পরের সংবাদ»

নিজস্ব প্রতিবেদক: একাত্তরে মানবতাবিরোধী অপরাধের দায়ে পটুয়াখালীর মির্জাগঞ্জের রাজাকার ফোরকান মল্লিককে মৃত্যুদণ্ড দিয়েছেন আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনাল-২। বৃহস্পতিবার সকাল সাড়ে ১০টার দিকে এ রায় ঘোষণা করা হয়।
 
এর আগে বৃহস্পতিবার সকালে ফোরকান মল্লিককে ঢাকা কেন্দ্রীয় কারাগার থেকে প্রিজন ভ্যানে করে ট্রাইব্যুনালে নেওয়া হয়। ট্রাইব্যুনালে পৌঁছানোর পর তাকে হাজতখানায় রাখা হয়েছিল। রায় ঘোষণার সময় আদালতে উপস্থিত ছিলেন মুসলিম লীগের সাবেক এ কর্মী।
 
বিচারপতি ওবায়দুল হাসানের নেতৃত্বে গঠিত তিন সদস্যের আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনাল-২ ফোরকান মল্লিকের বিরুদ্ধে আনা পাঁচটি অভিযোগের মধ্যে দুটিতে মৃত্যুদণ্ড দিয়েছেন। একটি অভিযোগে আমৃত্যু কারাদণ্ড এবং দুটি অভিযোগ থেকে তাকে খালাস দেওয়া হয়েছে। পাঁচটি অভিযোগের মধ্যে ৩ ও ৫ নম্বর অভিযোগে তাকে মৃত্যুদণ্ড দেওয়া হয়। এছাড়া চার নম্বর অভিযোগে তাকে আমৃত্যু কারাদণ্ড দিয়েছেন ট্রাইব্যুনাল। ১ ও ২ নম্বর অভিযোগ থেকে তাকে কালাস দেওয়া হয়েছে।
 
গত মঙ্গলবার ফোরকান মল্লিকের রায়ের দিন ধার্য করেন। এর আগে গত ১৪ জুন উভয়পক্ষের যুক্তিতর্ক উপস্থাপন শেষে রায়ের জন্য অপেক্ষমান (সিএভি) রাখা হয়।  ওই দিন ট্রাইব্যুনালে আসামির পক্ষে যুক্তি উপস্থাপন করেন অ্যাডভোকেট আবদুস সালাম খান এবং প্রসিকিউশনে ছিলেন প্রসিকিউটর মোখলেসুর রহমান বাদল ও ড. তুরিন আফরোজ।
 
গত বছরের ১৮ ডিসেম্বর ফোরকান মল্লিকের বিরুদ্ধে অভিযোগ গঠনের মধ্যে দিয়ে ট্রাইব্যুনাল-২ এ বিচার শুরু হয়। তার বিরুদ্ধে একাত্তরে হত্যা, নির্যাতন, ধর্ষণ, অগ্নিসংযোগ ও ধর্মান্তকরণসহ মানবতাবিরোধী অপরাধের পাঁচটি অভিযোগ দাখিল করে রাষ্ট্রপক্ষ। একাত্তরে ৮জনকে হত্যা, ৪ জনকে ধর্ষণ, ৩ জনকে ধর্মান্ততকরণ, ১৩টি পরিবারকে দেশান্তর, ৬৪টি বাড়ি-ঘর লুটপাট ও অগ্নিসংযোগের  অভিযোগে তাকে অভিযুক্ত করা হয়।
 
২০০৯ সালে ২১ জুলাই ফোরকান মল্লিকের বিরুদ্ধে মির্জাগঞ্জ থানায় আবদুল হামিদ নামে এক ব্যক্তি মামলা করেন। এরপর পটুয়াখালীর গোয়েন্দা পুলিশ গত বছর ২৫ জুন তাকে বরিশালের রুপাতলী বাসস্ট্যান্ড থেকে গ্রেফতার করে। এরপর ৩ জুলাই ট্রাইব্যুনাল তাকে কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দেন। বিচার চলাকালে মামলার তদন্ত কর্তকর্তা সত্যরঞ্জন রায়সহ ১৪জন তার বিরুদ্ধে ট্রাইব্যুনালে সাক্ষ্য দেন। আসামিপক্ষে সাফাই সাক্ষ্য দেন ৪ জন।


এ পাতার অন্যান্য সংবাদ

•বেসিক ব্যাংকের দুর্নীতি মামলার সব তদন্ত কর্মকর্তাকে আদালতে তলব •খালেদা জিয়ার মাথায় আরো যেসব মামলা ঝুলছে •নিখোঁজ হবার প্রায় চারমাস পর 'গ্রেপ্তার' বাংলাদেশ কল্যাণ পার্টির মহাসচিব, চারদিনের রিমান্ডে •ডেসটিনির দুই শীর্ষ কর্তার আবেদন খারিজ •প্রথমে ছেলে, পরে বাপ এসে আমার ওপর নির্যাতন করে' •ঝিনাইদহে সার কারখানা থেকে বিপুল পরিমান সালফিউরিক এ্যাসিড জব্দ, লাইসেন্স বাতিল, জরিমানা •হাইড্রোলিক হর্ন ১৫ দিনের মধ্যে থানায় জমা দিতে হবে : হাইকোর্ট •ঝিনাইদহে ৭ বছর পর রিপন হত্যা মামলায় মৃত্যুদন্ডের আদেশ
Untitled Document
  • সর্বশেষ সংবাদ
  • সবচেয়ে পঠিত
  • এক্সক্লুসিভ

Top
Untitled Document