/* */
   Monday,  Jun 25, 2018   9 PM
Untitled Document Untitled Document
শিরোনাম: •আওয়ামী লীগের ইতিহাস মানুষের অধিকার প্রতিষ্ঠার ইতিহাস : প্রধানমন্ত্রী •জাতীয় উন্নয়নের ধারা অব্যাহত রাখতে নিষ্ঠার সঙ্গে কাজ করুন : রাষ্ট্রপতি •এমপি হোক আর এমপির ছেলে হোক কাউকে ছাড় নয়: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী,আসাদুজ্জামান খাঁন কামাল • তিন সিটিতে আওয়ামী লীগের মনোনয়ন পেলেন যারা •নাইজেরিয়ার জয়ে আর্জেন্টিনার স্বপ্ন বড় হলো •আওয়ামী লীগের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীতে নানা কর্মসূচি •টেলিটকের ফোরজির জন্য অপেক্ষা আরো চার মাস
Untitled Document

ক্ষমা চাইলেন জাফরুল্লাহ

তারিখ: ২০১৫-০৭-২৮ ১২:২০:৫৪  |  ২৪৮ বার পঠিত

0 people like this
Print Friendly and PDF
« আগের সংবাদ পরের সংবাদ»

নিজস্ব প্রতিবেদক: অবশেষে আপিল বিভাগে নিঃশর্ত ক্ষমা চেয়ে ট্রাইব্যুনালের দেওয়া আদালত অবমাননার দণ্ড থেকে রেহাই পেলেন গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রের প্রতিষ্ঠাতা ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরী। তবে ভবিষ্যতে বিচার বিভাগ সম্পর্কে কথাবার্তা বলার ক্ষেত্রে তাকে সতর্ক করে দিয়েছেন সর্বোচ্চ আদালত।

মঙ্গলবার সকালে নিঃশর্ত ক্ষমা চেয়ে আবেদন করার পর প্রধান বিচারপতি সুরেন্দ্র কুমার সিনহার নেতৃত্বে আপিল বিভাগ তার আবেদন মঞ্জুর করে ট্রাইব্যুনালের দেওয়া জরিমানার দণ্ড বাতিল করে এ আদেশ দেন।

আদালতে ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরীর পক্ষে নিঃশর্ত ক্ষমা চেয়ে লিখিত আবেদন জমা দেন তার আইনজীবী আব্দুর রেজাক খান। তিনি সাংবাদিকদের জানান, আদালত আবেদনটি গ্রহণ করে ট্রাইব্যুনালের দেওয়া দণ্ড বাতিল করে দিয়েছেন।

রাষ্ট্রপক্ষে ছিলেন অ্যাটর্নি জেনারেল মাহবুবে আলম।

গত ১০ জুন ডা. জাফরুল্লাহকে এক ঘণ্টার কারাদণ্ড (এজলাসকক্ষে আসামির কাঠগড়ায় দাঁড়িয়ে থাকা) এবং পাঁচ হাজার টাকা জরিমানা অনাদায়ে একমাসের কারাদণ্ডের সাজা দেন আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনাল-২। ব্রিটিশ নাগরিক ও সাংবাদিক ডেভিড বার্গম্যানকে ট্রাইব্যুনালের সাজার বিষয়ে উদ্বেগ জানিয়ে বিবৃতি দেওয়ায় আদালত অবমাননার দায়ে এ সাজা হয় তার। এর মধ্যে অনেক নাটকীয়তার পর এক ঘণ্টার কারাদণ্ড ভোগ করলেও জরিমানার আদেশ বাতিলে আপিল বিভাগে আবেদন করেন তিনি।

ট্রাইব্যুনালের রায়ের বিরুদ্ধে গত ১৬ জুন চেম্বার জজ আদালতে আবেদন করেন জাফরুল্লাহ চৌধুরী। আবেদনটি গ্রহণ করে আপিল বিভাগের পূর্ণাঙ্গ বেঞ্চে পাঠিয়ে দিয়ে জরিমানার আদেশ স্থগিত করেন চেম্বার বিচারপতি হাসান ফয়েজ সিদ্দিকীর আদালত।

সোমবার (২৭ জুলাই) এ আবেদনের শুনানিতে আইনজীবী আব্দুর রেজাক খান ও ব্যারিস্টার আব্দুল্লাহ আল মামুন জানিয়েছিলেন, ওই বিবৃতির জন্য ক্ষমা চেয়ে মঙ্গলবার জাফরুল্লাহ চৌধুরী একটি লিখিত আবেদন জমা দেবেন।

গত ১০ জুনের সাজার আদেশের পর দণ্ড ভোগ করতে কাঠগড়ায় উঠতে অস্বীকৃতি জানিয়ে দীর্ঘ এক ঘণ্টা ২৫ মিনিট ধরে এজলাসে বাকবিতণ্ডা, ট্রাইব্যুনাল ও বিচারপতিদের সঙ্গে অসৌজন্যমূলক ও ঔদ্ধত্যপূর্ণ আচরণ করেন ডা. জাফরউল্লাহ। এমনকি চেয়ারম্যান বিচারপতি ওবায়দুল হাসানসহ ট্রাইব্যুনালের তিন বিচারপতিকে তিনি বলেন, আপনারা ক্ষমতার অপব্যবহার করে এ আদেশ দিয়েছেন। বিচারকরা এজলাস ত্যাগ করার পরও উচ্চকণ্ঠে তিনি বলতে থাকেন, এটা বিচারকদের অসহিষ্ণুতার লক্ষণ।

অবশেষে অনেকের অনুরোধ ও জোরাজুরিতে কাঠগড়ায় দাঁড়িয়ে দণ্ড ভোগ করলেও ট্রাইব্যুনাল থেকে বের হয়েই ডা. জাফরুল্লাহ সাংবাদিকদের বলেন, তিনি জরিমানার টাকা পরিশোধ করবেন না। তাতে যা হবার হবে। ট্রাইব্যুনালের এ রায়ের বিরুদ্ধে উচ্চ আদালতে আপিল করবেন বলেও সে সময় জানিয়েছিলেন তিনি।


এ পাতার অন্যান্য সংবাদ

•এমপি হোক আর এমপির ছেলে হোক কাউকে ছাড় নয়: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী,আসাদুজ্জামান খাঁন কামাল •বেসিক ব্যাংকের দুর্নীতি মামলার সব তদন্ত কর্মকর্তাকে আদালতে তলব •খালেদা জিয়ার মাথায় আরো যেসব মামলা ঝুলছে •নিখোঁজ হবার প্রায় চারমাস পর 'গ্রেপ্তার' বাংলাদেশ কল্যাণ পার্টির মহাসচিব, চারদিনের রিমান্ডে •ডেসটিনির দুই শীর্ষ কর্তার আবেদন খারিজ •প্রথমে ছেলে, পরে বাপ এসে আমার ওপর নির্যাতন করে' •ঝিনাইদহে সার কারখানা থেকে বিপুল পরিমান সালফিউরিক এ্যাসিড জব্দ, লাইসেন্স বাতিল, জরিমানা •হাইড্রোলিক হর্ন ১৫ দিনের মধ্যে থানায় জমা দিতে হবে : হাইকোর্ট
Untitled Document
  • সর্বশেষ সংবাদ
  • সবচেয়ে পঠিত
  • এক্সক্লুসিভ

Top
Untitled Document