/* */
   Sunday,  Jun 24, 2018   6 PM
Untitled Document Untitled Document
শিরোনাম: •আওয়ামী লীগের ইতিহাস মানুষের অধিকার প্রতিষ্ঠার ইতিহাস : প্রধানমন্ত্রী •জাতীয় উন্নয়নের ধারা অব্যাহত রাখতে নিষ্ঠার সঙ্গে কাজ করুন : রাষ্ট্রপতি •এমপি হোক আর এমপির ছেলে হোক কাউকে ছাড় নয়: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী,আসাদুজ্জামান খাঁন কামাল • তিন সিটিতে আওয়ামী লীগের মনোনয়ন পেলেন যারা •নাইজেরিয়ার জয়ে আর্জেন্টিনার স্বপ্ন বড় হলো •আওয়ামী লীগের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীতে নানা কর্মসূচি •টেলিটকের ফোরজির জন্য অপেক্ষা আরো চার মাস
Untitled Document

মহাসড়কে বিক্ষোভ চলছেই

তারিখ: ২০১৫-০৮-০৪ ১৬:৫৯:১৭  |  ৩২৮ বার পঠিত

0 people like this
Print Friendly and PDF
« আগের সংবাদ পরের সংবাদ»

নিউজ ডেস্ক: সিএনজিচালিত অটোরিকশা চলাচলে সরকারি নিষেধাজ্ঞার প্রতিবাদে গতকাল সোমবারও দেশের বিভিন্ন অঞ্চলে মহাসড়ক-সড়ক অবরোধ, মানববন্ধন, বিক্ষোভ ও সমাবেশ করেছেন অটোরিকশা, বেবিট্যাক্সি ও টেম্পো চালক-মালিকরা। কোথাও কোথাও বিক্ষোভকারীরা যানবাহন ভাংচুর করেছে। অনেক স্থানে পুলিশের সঙ্গে বিক্ষোভকারীদের সংঘর্ষ হয়েছে। পুলিশের ফাঁকা গুলি, লাঠিচার্জ, টিয়ার গ্যাসের শেল ও ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়ায় নারায়ণগঞ্জ ও গাজীপুরের টঙ্গীতে আহত হয়েছেন কমপক্ষে ২০ শ্রমিক। নারায়ণগঞ্জে আটক হয়েছেন ৬ শ্রমিক। অটোরিকশার চালকদের অবরোধে ঢাকা-চট্টগ্রাম, ঢাকা-মাওয়াসহ

বিভিন্ন মহাসড়কে কয়েক কিলোমিটার যানজট সৃষ্টি হয়। এতে যাত্রীদের ভোগান্তিতে পড়তে হয়। গত তিন দিন ধরে অটোরিকশার চালকদের অব্যাহত এ আন্দোলনের বিষয়ে যোগাযোগ মন্ত্রণালয়ের পক্ষ থেকে কোনো প্রতিক্রিয়া জানানো হয়নি। মন্ত্রণালয়ের কর্মকর্তারা জানিয়েছেন, সিদ্ধান্তের পক্ষে তাদের অবস্থান স্পষ্ট। ব্যুরো, অফিস, প্রতিনিধি ও সংবাদদাতাদের পাঠানো খবর :
নারায়ণগঞ্জ :মহাসড়কে অটোরিকশা নিষিদ্ধের প্রতিবাদে তৃতীয় দিনের মতো ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কে নারায়ণগঞ্জের সিদ্ধিরগঞ্জ, বন্দর, আড়াইহাজার, সোনারগাঁও, ভুলতা, কাচপুর, সাইনবোর্ডসহ বিভিন্ন স্থানে সড়ক অবরোধ করে বিক্ষোভ করেছে চালকরা। শ্রমিকদের অবরোধের কারণে প্রায় ১ ঘণ্টা ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কে সব ধরনের যান চলাচল বন্ধ থাকে। এতে দেখা দেয় দীর্ঘ যানজট। বিক্ষুব্ধ শ্রমিকরা এ সময় কমপক্ষে ২০টি যানবাহন ভাংচুর করে। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে পুলিশ লাঠিচার্জ এবং ৯ রাউন্ড টিয়ার গ্যাসের শেল নিক্ষেপ করে। পুলিশের লাঠিচার্জে ১০ শ্রমিক আহত হয়েছেন। ঘটনাস্থল থেকে পুলিশ ৬ শ্রমিককে আটক করেছে বলে নারায়ণগঞ্জ পুলিশের ডিআইও-১ নাসির উদ্দিন নিশ্চিত করেছেন।

মুন্সীগঞ্জ :ঢাকা-মাওয়া মহাসড়কে মুন্সীগঞ্জের সিরাজদীখানের বিভিন্ন পয়েন্টে দুই ঘণ্টা সড়ক অবরোধ করে অটোরিকশার চালক ও মালিকরা। উপজেলার নিমতলী থেকে শুরু করে কুচিয়া কলেজ গেট, ধলেশ্বরী ব্রিজসহ মহাসড়কের বিভিন্ন পয়েন্টে যাত্রীবাহী বাসের চাকা পাংচার করে দেন অটোরিকশা মালিক-শ্রমিক সংগঠনের সদস্যরা। এতে মহাসড়কে সব ধরনের যান চলাচল বন্ধ হয়ে প্রায় ১০ কিলোমিটার এলাকাজুড়ে যানজটের সৃষ্টি হয়। এদিকে মুন্সীগঞ্জের গজারিয়া অংশে ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কে গজারিয়া থানা ও হাইওয়ে পুলিশ কঠোর অবস্থান নিয়েছে। একাধিক পয়েন্টে ভ্রাম্যমাণ আদালত বেশ কিছু যানবাহনকে জরিমানা করেন।


টঙ্গী (গাজীপুর) : ঢাকা-ময়মনসিংহ মহাসড়কে গাজীপুরের টঙ্গীতে অটোরিকশার চালক ও পুলিশের মধ্যে সংঘর্ষ হয়েছে। টঙ্গীর কলেজ গেট এলাকায় শ্রমিকরা লাঠিমিছিল বের করলে পুলিশ লাঠিচার্জ করে তাদের ছত্রভঙ্গ করে দেয়। এ সময় কমপক্ষে ১০ শ্রমিক আহত হন। টঙ্গী থানার ওসি মোহাম্মদ আলী জানান, অপ্রীতিকর পরিস্থিতি এড়াতে পুরো এলাকায় অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে।
নান্দাইল (ময়মনসিংহ) :নান্দাইল উপজেলা শ্রমিক ও স্বেচ্ছাসেবক লীগের আহ্বানে শতাধিক চালক অটোরিকশা নিয়ে শহরে চণ্ডীপাশা সরকারি উচ্চবিদ্যালয় মাঠে জড়ো হন। এ সময় তারা ময়মনসিংহ-কিশোরগঞ্জ মহাসড়ক দুই ঘণ্টা অবরোধ করে রাখেন। পরে নান্দাইল উপজেলা চেয়ারম্যান আবদুল মালেক চৌধুরী ও উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. শাহানুর আলম চালকদের দাবি ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষকে জানানোর আশ্বাস দিলে চালকরা অবরোধ প্রত্যাহার করে নেন।
এ ছাড়া বগুড়া, রংপুর, নাটোর, রাজবাড়ী, কুষ্টিয়া ও সিরাজগঞ্জের উল্লাপাড়ায় মহাসড়ক অবরোধ করেন অটোরিকশার চালকরা।

তিতাসে থ্রি হুইলার চালক ও বরযাত্রীর মধ্যে সংঘর্ষ আহত ২
তিতাস (কুমিল্লা) সংবাদদাতা জানান, কুমিল্লার তিতাস উপজেলার ঢাকা-হোমনা সড়কের গোমতী নদীর বেইলি ব্রিজে ওঠার সময় বরযাত্রী ও থ্রি হুইলার চালকের মধ্যে বাকবিতণ্ডার এক পর্যায়ে সংঘর্ষে ২ জন আহত হয়। জানা যায়, তিতাস উপজেলা সদরের কড়িকান্দি গ্রামের জহির মোল্লার ছেলের বিয়ের বরযাত্রী পার্শ্ববর্তী দাউদকান্দি যাওয়ার পথে গোমতী নদীর বেইলি ব্রিজে ওঠাকে কেন্দ্র করে একই উপজেলার সোলাকান্দি গ্রামের থ্রি হুইলার চালক মো. আল-আমিনের বাকবিতণ্ডা হয়। এ নিয়ে জিয়ারকান্দি নওয়াগাঁয়ের রাশিদ মিয়ার ছেলে বুট্রু ও তার সহযোগী আট-দশজনের একটি দল বরযাত্রীদের ওপর হামলা করে টাকা ও স্বর্ণালঙ্কার ছিনিয়ে নিয়ে যায়। এ সময় বরযাত্রী পক্ষের মো. তাজুল ইসলাম গুরুতর আহত হন। এতে বরযাত্রী ক্ষিপ্ত হয়ে থ্রি হুইলার চালক আল-আমিনকে (২০) ধরে এনে মারধরের পরে পুলিশের কাছে সোপর্দ করে।


এ পাতার অন্যান্য সংবাদ

•মানবসম্পদ উন্নয়নে জাপান ৩৪ কোটি টাকার অনুদান দেবে •বিপন্ন রোহিঙ্গারা স্থানীয় জনগণের সহযোগিতা পাচ্ছে : প্রধানমন্ত্রী •নিরাপত্তা বেষ্টনী কর্মসূচিতে বিশ্ব ব্যাংকের অতিরিক্ত ২৪৫ মিলিয়ন মার্কিন ডলার প্রদানের চুক্তি স্বাক্ষর মঙ্গলবার •রাষ্ট্রের তিন বিভাগের মধ্যে ঐক্যের আহ্বান রাষ্ট্রপতির •দেশের ইতিহাসে রংপুর সিটি নির্বাচন অন্যতম সেরা : ইডব্লিউজি •ফারমার্স ব্যাংক থেকে মহীউদ্দীন আলমগীরের পদত্যাগ বেসিক ব্যাংকের দুই সাবেক পরিচালককে জিজ্ঞাসাবাদ •বাংলাদেশে ৮ লাখ ১৭ হাজার রোহিঙ্গা আশ্রয় নিয়েছে : আইওএম •রোহিঙ্গা ক্যাম্পে দশ হাজার লেট্রিন নির্মাণ করে দিবে ইউনিসেফ
Untitled Document
  • সর্বশেষ সংবাদ
  • সবচেয়ে পঠিত
  • এক্সক্লুসিভ

Top
Untitled Document