/* */
   Monday,  Jun 18, 2018   5 PM
Untitled Document Untitled Document
শিরোনাম: •বাংলাদেশের ঢাকায় কিভাবে কাটে তরুণীদের অবসর সময়? •রাশিয়া বিশ্বকাপ ফুটবল ২০১৮: ইতিহাসের বিচারে কে চ্যাম্পিয়ন হতে পারে •বাংলাদেশের উপকূলের কাছে রাসায়নিক বহনকারী জাহাজে আগুন •ঈদের যুদ্ধবিরতিতে অস্ত্র ছাড়াই কাবুলে ঢুকলো তালেবান যোদ্ধারা •বিশ্বব্যাংক প্রাথমিক শিক্ষা উন্নয়নে ৭শ’ মিলিয়ন ডলার দেবে •ঢাকা মহানগরীতে ৪০৯টি ঈদ জামাত অনুষ্ঠিত •জাতীয় ঈদগাহে রাষ্ট্রপতির ঈদের নামাজ আদায়
Untitled Document

বিলুপ্ত ছিটমহলে ট্রাভেল পাস বিতরণ

তারিখ: ২০১৫-০৯-০৭ ১৭:১২:০০  |  ২৬৬ বার পঠিত

0 people like this
Print Friendly and PDF
« আগের সংবাদ পরের সংবাদ»

পঞ্চগড় প্রতিনিধি: বাংলাদেশে নিযুক্ত ভারতীয় হাই কমিশনার পঙ্কজ শরণ বলেছেন, 'বিলুপ্ত ভারতীয় ছিটমহলের যেসব বাসিন্দা ট্রাভেল পাস পাবেন তাদের আগামী ৩০ নভেম্বরের মধ্যে ভারতে যেতে হবে।'
 
পঞ্চগড়ে বিভিন্ন ছিটমহলে যারা ভারতের নাগরিকত্ব বজায় রাখতে চান তাদের ট্রাভেল পাস দিয়ে এ কথা বলেন তিনি।
 
সোমবার সকাল সাড়ে ১০টায় পঞ্চগড়ের দেবীগঞ্জ উপজেলা ডাকবাংলোয় তিনি সাবেক ছিটমহলের ১০ বাসিন্দাকে ট্রাভেল পাস প্রদান করেন। এই পাস প্রদান কার্যক্রম চলবে মঙ্গলবার পর্যন্ত।
 
গত ৬ থেকে ১৬ জুলাই উভয় দেশের জনগণনায় পঞ্চগড়ের তিন উপজেলায় ৩৬ ছিটমহলের ৪৮৭ জন বাসিন্দা ভারতে যাওয়ার আগ্রহ প্রকাশ করেন। এদের মধ্যে সদর উপজেলায় ৪ জন, বোদা উপজেলায় ৫২ জন এবং দেবীগঞ্জ উপজেলার বিভিন্ন ছিটমহলের ৪৩১ জন ট্রাভেল পাস পাবেন।
 
একইভাবে নীলফামারী, লালমনিরহাট ও কুড়িগ্রাম জেলায় ক্যাম্প করে ট্রাভেল পাস দেওয়া হচ্ছে।
 
ট্রাভেল পাস প্রদান অনুষ্ঠানে ভারতীয় ডেপুটি হাই কমিশনার সন্দিপ মিত্র, ভারতীয় দুতাবাসের প্রথম সেক্রেটারি রমাকান্ত রায়, পঞ্চগড়ের অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক মো. গোলাম আযমসহ ভারত ও বাংলাদেশের বিভিন্ন পর্যায়ের কর্মকর্তা উপস্থিত ছিলেন।
 
পঙ্কজ শরণ বলেন, 'বাংলাদেশ এবং ভারত সরকারের আন্তরিকতায় উভয় দেশের ছিটমহলের বাসিন্দাদের ৬৮ বছরের দুর্ভোগ দূর হয়েছে। যারা এই ট্রাভেল পাস পাবেন তারা ৩০ নভেম্বরের মধ্যে চূড়ান্তভাবে ভারতে প্রবেশ করবেন। এর আগে তারা যে কোনো সময় ভারত এবং বাংলাদেশের মধ্যে যাতায়াতের সুযোগ পাবেন। যারা চূড়ান্তভাবে ভারতে যাবেন তাদের যাওয়া এবং মালামাল পরিবহনের খরচ ভারত সরকার বহন করবে।'
 
তিনি বলেন, 'ট্রাভেল পাসধারীরা হলদিবাড়ি-চিলাহাটি, সাহেবগঞ্জ-বাগবন্দর ও চ্যাংড়াবান্ধা-বুড়িমারি চেকপোস্ট ব্যবহার করতে পারবেন। তারা ৮ সেপ্টেম্বর থেকে ৩১ অক্টোবর পর্যন্ত যাতায়াত করবেন এবং ১ থেকে ৩০ নভেম্বরের মধ্যে চূড়ান্তভাবে ভারতে চলে যাবেন।'


এ পাতার অন্যান্য সংবাদ

•২০২৪ সাল পর্যন্ত রাশিয়ার উন্নয়ন পরিকল্পনা ‘মে ডিক্রি’ স্বাক্ষর পুতিনের •ইসরায়েলি সৈন্যকে চড় মেরে ঝড় তুলেছে ফিলিস্তিনি এক কিশোরী •মেক্সিকোর জন্যে সবচেয়ে রক্তক্ষয়ী বছর ২০১৭ •ইসরাইল-ফিলিস্তিন সমঝোতা প্রক্রিয়া পুনরায় শুরু করতে জাতিসংঘে রাশিয়ার আহবান •রোহিঙ্গা সংকটের টেকসই সমাধানে নমপেনের সহযোগিতা কামনা ঢাকার •মিয়ানমার রোহিঙ্গাদের ফেরত নিতে সম্মত •বাংলাদেশে পালিয়ে আসা রোহিঙ্গা নারী: “আঁর পোয়াইন্দার বাপ ইঞ্জিনিয়ার আছিল” •বাবা-মাকে ছাড়াই বাংলাদেশে তেরোশো রোহিঙ্গা শিশু
Untitled Document
  • সর্বশেষ সংবাদ
  • সবচেয়ে পঠিত
  • এক্সক্লুসিভ

Top
Untitled Document