/* */
   Friday,  Jun 22, 2018   10 PM
Untitled Document Untitled Document
শিরোনাম: •সিসিলিতে ৫২২ অভিবাসী নিয়ে ইতালির উপকূলরক্ষী জাহাজের অবতরণ •সরকারের উন্নয়নমূলক কর্মকান্ড সম্পর্কে তুলে ধরতে গণমাধ্যমের প্রতি তথ্য সচিবের আহ্বান •বিশেষ অর্থনৈতিক অঞ্চলে ১ কোটি মানুষের কর্মসংস্থান হবে : প্রধানমন্ত্রী •মানবসম্পদ উন্নয়নে জাপান ৩৪ কোটি টাকার অনুদান দেবে •সৌদি আরবকে হারিয়ে রাশিয়াকে নিয়ে শেষ ষোলোতে উরুগুয়ে •গণভবনে মহিলা ক্রিকেটারদের প্রধানমন্ত্রীর সংবর্ধনা •প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে নির্বাচনকালীন সরকার অক্টোবরে গঠিত হতে পারে : ওবায়দুল কাদের
Untitled Document

স্টেট ব্যাংক অব ইন্ডিয়ার কর্মকর্তা সাসপেন্ড

তারিখ: ২০১৫-০৯-২৩ ১৩:০১:৫৬  |  ২১৮ বার পঠিত

0 people like this
Print Friendly and PDF
« আগের সংবাদ পরের সংবাদ»

নিজস্ব প্রতিবেদক: বাংলাদেশ ব্যাংকের ভল্ট-সংলগ্ন স্থান থেকে টাকা চুরির তথ্য প্রকাশের পর ব্যাপক তোলপাড় হয়েছে। সবচেয়ে বেশি আলোচনা হয়েছে বিষয়টি গোপন রাখার চেষ্টা নিয়ে। কেন্দ্রীয় ব্যাংকের মতো সুরক্ষিত স্থান থেকে চাঞ্চল্যকর এ চুরির তথ্য ফাঁসের পর পুরো এলাকার নিরাপত্তা বাড়ানো হয়েছে।

এদিকে এ ঘটনায় জড়িত স্টেট ব্যাংক অব ইন্ডিয়ার অভিযুক্ত কর্মকর্তা দীপক চন্দ্র দাশকে সাময়িক বরখাস্ত করেছে ব্যাংক কর্তৃপক্ষ। অন্যদিকে সুরক্ষিত এলাকা থেকে টাকা নিয়ে বের হয়ে যাওয়ার সুযোগ পাওয়ায় কেন্দ্রীয় ব্যাংকের নিরাপত্তা ব্যবস্থায় কোনো ঘাটতি আছে কি-না তা খতিয়ে দেখতে নির্বাহী পরিচালক আহমেদ জামাল, মতিঝিল অফিসের মহাব্যবস্থাপক মাছুম পাটোয়ারি ও কারেন্সি অফিসার (মহাব্যবস্থাপক) শহিদুর রহমানকে দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে।
গতকাল মঙ্গলবার 'কেন্দ্রীয় ব্যাংকের ভল্ট থেকে টাকা চুরি' শিরোনামে রিপোর্ট প্রকাশের পর গভর্নর ড. আতিউর রহমান ডেপুটি গভর্নর, নির্বাহী পরিচালক ও মহাব্যবস্থাপকসহ বিভিন্ন পর্যায়ের কর্মকর্তাদের নিয়ে বৈঠক করে এসব নির্দেশনা দেন। বৈঠক শেষে বাংলাদেশ ব্যাংকের মুখপাত্র ম. মাহফুজুর রহমান ও উপ-মুখপাত্র এএফএম আসাদুজ্জামান সাংবাদিকদের এসব তথ্য জানিয়েছেন।
তারা জানান, অভিযুক্ত কর্মকর্তাকে ইতিমধ্যে সাময়িক বরখাস্ত করেছে স্টেট ব্যাংক অব ইন্ডিয়া। এখন তার বিরুদ্ধে সর্বোচ্চ শাস্তি নিশ্চিত ও প্রয়োজনে আইন প্রয়োগকারী সংস্থার হাতে তুলে দিতে বলা হয়েছে। যেখান থেকে টাকা চুরি হয়েছে সেখানে বিশেষ পাস ছাড়া কেউ ঢুকতে পারে না। আবার বের হওয়ার সময়ও চেক করে বের করা হয়। এমন সুরক্ষিত এলাকা থেকে টাকা নিয়ে দীপক কীভাবে বেরিয়ে গেলেন সে বিষয় খতিয়ে দেখা হচ্ছে।
গত রোববার ডাচ্-বাংলা ব্যাংকের প্রতিনিধিরা চেকের বিপরীতে বাংলাদেশ ব্যাংক থেকে টাকা নিয়ে বস্তায় ভরার সময় স্টেট ব্যাংক অব ইন্ডিয়ার টাকা নিতে আসা প্রতিনিধি দীপক চন্দ্র দাশ ৫ লাখ টাকার একটি বান্ডিল হাতিয়ে নেন। ভল্ট-সংলগ্ন এলাকা থেকে হাতিয়ে নেওয়া টাকা তিনি চুপিসারে বাইরে রেখে আবার ভেতরে ঢোকেন। এ ঘটনায় দীপককে আটকের কিছুক্ষণের মধ্যে আবার ছেড়ে দেওয়া হয়। বাংলাদেশ ব্যাংকের নীতিনির্ধারকসহ বেশিরভাগ কর্মকর্তা ঘটনাটি জেনেছেন সমকালের রিপোর্ট পড়ে।
প্রকাশিত প্রতিবেদনের আংশিক প্রতিবাদ :গতকাল প্রকাশিত প্রতিবেদনের একটি অংশের প্রতিবাদ জানিয়েছে বাংলাদেশ ব্যাংক। প্রতিবাদে বলা হয়েছে, বাংলাদেশ ব্যাংকের ভল্ট থেকে কোনো টাকা চুরির ঘটনা ঘটেনি। ঘটনার দিন ডাচ্-বাংলা ব্যাংকের প্রতিনিধিরা টাকা নিয়ে ভল্টের বাইরে করিডোরে বেরিয়ে এসে বস্তায় ভরার সময় ৫ লাখ টাকা খোয়া যায়। বিষয়টি কেন্দ্রীয় ব্যাংকের আঙিনায় সংঘটিত হওয়ায় চুরির ঘটনায় জড়িত ব্যক্তিকে চিহ্নিত ও ডাচ্-বাংলা ব্যাংকের টাকা উদ্ধারে সহযোগিতা করা হয়েছে।


এ পাতার অন্যান্য সংবাদ

•বিশ্বব্যাংক প্রাথমিক শিক্ষা উন্নয়নে ৭শ’ মিলিয়ন ডলার দেবে •ব্যাংকগুলোতে শৃঙ্খলা ফিরিয়ে আনা এবং মান উন্নয়নের ওপর জোর দিয়েছেন ব্যবসায়ি নেতারা •২০২৪ সালের আগেই উন্নয়নশীল দেশে পরিণত হবে বাংলাদেশ : এলজিআরডি মন্ত্রী •রিজার্ভ চুরির ঘটনায় আরসিবিসির বিরুদ্ধে মামলা করবে বাংলাদেশ ব্যাংক •একনেকে ১৩ প্রকল্পের অনুমোদন •ন্যূনতম ১৬ হাজার টাকা বেতন চান বাংলাদেশের তৈরি পোশাক শ্রমিকরা •ভারত থেকে গরুর মাংস আমদানির প্রস্তাব নাকচ •কম্বোডিয়ার সঙ্গে ১০টি সমঝোতা স্মারক স্বাক্ষরিত
Untitled Document
  • সর্বশেষ সংবাদ
  • সবচেয়ে পঠিত
  • এক্সক্লুসিভ

Top
Untitled Document