/* */
   Thursday,  Dec 13, 2018   00:17 AM
Untitled Document Untitled Document
শিরোনাম: •স্বাধীনতা সার্বভৌমত্ব রক্ষায় সজাগ থাকতে সেনা কর্মকর্তাদের প্রতি রাষ্ট্রপতির আহ্বান •মনোনয়ন বাতিলের বিরুদ্ধে খালেদা জিয়ার আপিল ইসিতে খারিজ •মনোনয়ন না পাওয়া দলের প্রার্থীদের মহাজোট প্রার্থীর পক্ষে প্রার্থিতা প্রত্যাহারের অনুরোধ শেখ হাসিনার •নির্বাচনী প্রচারণায় ট্রাম্পকে ‘রাজনৈতিক’ সহযোগিতার প্রস্তাব দেয় রাশিয়া •টেকনোক্রেট কোন মন্ত্রী কেবিনেটে থাকছেন না : ওবায়দুল কাদের •বেগম রোকেয়া দিবস কাল •আগামীকাল থেকে ওয়েস্ট ইন্ডিজ . বাংলাদেশ। ওয়ানডে সিরিজ
Untitled Document

২০১৬ সালে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে খেলার সুযোগ পেল বাংলাদেশের মেয়েরা।

তারিখ: ২০১৫-১২-০৩ ২০:১১:০০  |  ২৭১ বার পঠিত

0 people like this
Print Friendly and PDF
« আগের সংবাদ পরের সংবাদ»

  নিউজ ডেস্ক:    গ্রুপ পর্বের তিনটি ম্যাচ। প্রথমটিতে ৭৩ রানে জয়। বাকি দুটিতে ৮ উইকেটের বড় ব্যবধানে জয়। দাপট দেখিয়ে ‘এ’ গ্রুপের শীর্ষে থেকে সেমিফাইনালে ওঠে বাংলাদেশ নারী ক্রিকেট দল।

 

সেমিফাইনালে প্রতিপক্ষ হিসেবে বাংলাদেশ পায় জিম্বাবুয়েকে। খুব চেনা প্রতিপক্ষ। গেল মাসেই ঘরের মাঠে জিম্বাবুয়ে নারী ক্রিকেট দলকে হোয়াইটওয়াশ করেছে টাইগ্রেসরা। সেমিফাইনালে তাদেরকে পেয়ে খানিকটা খুশিই হয় বাংলাদেশের মেয়েরা।

 

বৃহস্পতিবার প্রথম সেমিফাইনালে ব্যাট করে খুব বেশি সুবিধা করতে পারেনি জাহানারা আলমের নেতৃত্বাধীন বাংলাদেশ দল। জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে টস হেরে ব্যাট করতে নেমে নির্ধারিত ২০ ওভারে ৫ উইকেট হারিয়ে ৮৯ রান সংগ্রহ করে। কিন্তু বল হাতে দারুণভাবে চেপে ধরে প্রতিপক্ষকে।

 

মাত্র ৫৮ রানে জিম্বাবুয়ের ইনিংসকে গুড়িয়ে দিয়ে ৩১ রানের জয় তুলে নিয়ে ফাইনাল নিশ্চিত করেছে বাংলাদেশ। পাশাপাশি নিশ্চিত করেছে ২০১৬ সালে ভারতে অনুষ্ঠিতব্য টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের টিকিটও। এ নিয়ে টানা দ্বিতীয়বারের মতো টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে খেলার সুযোগ পেল বাংলাদেশের মেয়েরা।

  

৯০ রানের জয়ের লক্ষ্যে ব্যাট করতে নেমে বাংলাদেশের বোলারদের তোপের মুখে পড়ে জিম্বাবুয়ে নারী ক্রিকেট দল। নিয়মিত বিরতিতে তারা উইকেট হারাতে থাকে। ৪৪ রানের মধ্যেই তারা হারিয়ে বসে আট-আটটি উইকেট। শেষ পর্যন্ত ১৯.১ ওভারে ৫৮ রান তুলতেই অলআউট হয়ে যায় জিম্বাবুয়ের নারীরা।

 

৪টি উইকেট নিয়েছেন রুমানা আহমেদ। দুটি করে উইকেট নিয়েছেন শায়লা শারমিন ও ফাহিমা খাতুন। অন্য দুই উইকেট রান আউটে কাটা পড়ে।

 

এর আগে ব্যাংককের তারথাই ক্রিকেট গ্রাউন্ডে টস হেরে ব্যাটিংয়ে নেমে শুরুতেই বিপর্যয়ে পরে বাংলাদেশের মেয়েরা। ১০ রান তুলতেই তারা হারিয়ে বসে প্রথম সারির তিন ব্যাটসম্যানকে। আয়শা রহমান ৫ এবং শায়লা শারমিন ও রুমানা আহমেদ শূন্য রানে সাজঘরে ফেরেন।

 

এরপর শারমিন আক্তার ও ফারজানা হক মিলে দলীয় স্কোরকে ৬১ রান পর্যন্ত টেনে নেন। ১৫.১ ওভারের মাথায় দলীয় ৬১ রানে আউট হয়ে যান শারমিন আক্তার (২২)। দলীয় ৮৬ রানে ফারাজানা হক ব্যক্তিগত ৪৩ রানে আউট হলে ২০ ওভারে ৫ উইকেট হারিয়ে ৮৯ রানে থামে বাংলাদেশের ইনিংস। রিতু মনি ৯ ও জাহানারা আলম ২ রানে অপরাজিত থাকেন।

 

বল হাতে জিম্বাবুয়ের জোসেফিনে এমকোমো ২টি উইকেট নেন। ১টি উইকেট নেন মাজভিশায়া। বাংলাদেশের অন্য দুটি উইকেট রান আউটে কাটা পড়ে।

 


এ পাতার অন্যান্য সংবাদ

•নারী বিশ্বকাপের প্রাইজ মানি বাড়ানোর ঘোষণা দিল ফিফা •টাইব্রেকারে স্পেনকে হারিয়ে কোয়ার্টারফাইনালে স্বাগতিক রাশিয়া •ফ্রান্সের সঙ্গে ড্র করে শেষ ষোলোতে ডেনমার্ক •নাইজেরিয়ার জয়ে আর্জেন্টিনার স্বপ্ন বড় হলো •সৌদি আরবকে হারিয়ে রাশিয়াকে নিয়ে শেষ ষোলোতে উরুগুয়ে •রাশিয়া বিশ্বকাপ ফুটবল ২০১৮: ইতিহাসের বিচারে কে চ্যাম্পিয়ন হতে পারে •হঠাৎ রিয়াল ছাড়লেন জিদান •ফুটবল খেলা আমাদের কাছে স্বাধীনতা': কলকাতায় মুসলিম মহিলাদের ফুটবল ম্যাচ
Untitled Document
  • সর্বশেষ সংবাদ
  • সবচেয়ে পঠিত
  • এক্সক্লুসিভ

Top
Untitled Document