/* */
   Wednesday,  Jun 20, 2018   01:42 AM
Untitled Document Untitled Document
শিরোনাম: •বাংলাদেশের ঢাকায় কিভাবে কাটে তরুণীদের অবসর সময়? •রাশিয়া বিশ্বকাপ ফুটবল ২০১৮: ইতিহাসের বিচারে কে চ্যাম্পিয়ন হতে পারে •বাংলাদেশের উপকূলের কাছে রাসায়নিক বহনকারী জাহাজে আগুন •ঈদের যুদ্ধবিরতিতে অস্ত্র ছাড়াই কাবুলে ঢুকলো তালেবান যোদ্ধারা •বিশ্বব্যাংক প্রাথমিক শিক্ষা উন্নয়নে ৭শ’ মিলিয়ন ডলার দেবে •ঢাকা মহানগরীতে ৪০৯টি ঈদ জামাত অনুষ্ঠিত •জাতীয় ঈদগাহে রাষ্ট্রপতির ঈদের নামাজ আদায়
Untitled Document

নদীতে জাল দিয়ে মাছ নয়, টাকা আর টাকা

তারিখ: ২০১৫-১২-০৭ ২০:০৫:৫০  |  ১৮২ বার পঠিত

0 people like this
Print Friendly and PDF
« আগের সংবাদ পরের সংবাদ»

আন্তর্জাতিক ডেস্ক  ;  অস্ট্রিয়ার ভিয়েনায় দানিউব নদীতে এক ঝাক মাছের মতো ভাসছিলো ইউরোর চকচকে বেশকিছু ব্যাঙ্ক নোট।

অল্প বয়সী এক ছেলে তখন ওই নোটগুলো দেখতে পেয়ে জাল নিয়ে নদীতে নেমে পড়ে এবং সাতার কেটে সেগুলো তীরে নিয়ে আসে।

একশো বা দুশো নয়, গুণে দেখা গেলো ওই ব্যাঙ্ক নোটের মূল্য এক লাখ ইউরোরও বেশি।

হায়রে কপাল, ছেলেটির জন্যে তখনও শিকে ছেড়েনি।

স্থানীয় একটি পত্রিকা বলছে, নদীর পার দিয়ে হেঁটে যাওয়া কয়েকজন লোক প্রথমে মনে করেছিলো ছেলেটি নদীতে ঝাঁপ দিয়ে আত্মহত্যার চেষ্টা করছে।

তখন তারা পুলিশকে খবর দেয়।

 

বিধিবাম!

ছেলেটি যখন ব্যাঙ্ক নোটগুলো বগলদাবা করে তীরে এসে পৌঁছায় ততোক্ষণে সেখানে এসে হাজির হয় পুলিশ।

তারপর সেই টাকা চলে যায় পুলিশের হাতে।

সবগুলোই ৫০০ আর ১০০ টাকার নোট, একেবারেই আনকোরা।

কিন্তু টাকার ব্যাপারে ছেলেটি দমে যায়নি এখনও।

পুলিশের কাছে সে ওই টাকার ভাগ চাইছে। কারণ সে দাবি করছে যে নদীতে ঝাপ দিয়ে জীবনের ঝুঁকি নিয়ে সে এই টাকা উদ্ধার করেছে।

অস্ট্রিয়ায় সাধারণত কেউ যদি অর্থ খুঁজে পান তারপর সেটা পুলিশের কাছে জমা দেন তাহলে তাকে ওই অর্থের ৫ থেকে ১০ ভাগ দেওয়া হয়ে থাকে।

 

পুলিশ বলছে, এক বছরের মধ্যে যদি টাকার মালিককে খুঁজে না পাওয়া যায় তাহলে শেষ পর্যন্ত পুরোটা টাকাই এই ছেলেটিকে দিয়ে দেওয়া হবে।

পুলিশ এখন এই রহস্য খুঁজে বের করার চেষ্টা করছে যে এত্তো ইউরো নদীতে আসলো কিভাবে?

প্রথমে তারা ভেবেছিলেন জাল নোট। কিন্তু পরে তারা পরীক্ষা করে দেখেছেন নোটগুলো আসল।

পুলিশের একজন মুখপাত্র বলছেন, কোনো অপরাধের সাথে তারা এখনও এই টাকার সংযোগ খুঁজে পাচ্ছেন না।

ইউরোর নোটগুলো এখন শুকানো হচ্ছে।বিবিসি

 


এ পাতার অন্যান্য সংবাদ

•২০২৪ সাল পর্যন্ত রাশিয়ার উন্নয়ন পরিকল্পনা ‘মে ডিক্রি’ স্বাক্ষর পুতিনের •ইসরায়েলি সৈন্যকে চড় মেরে ঝড় তুলেছে ফিলিস্তিনি এক কিশোরী •মেক্সিকোর জন্যে সবচেয়ে রক্তক্ষয়ী বছর ২০১৭ •ইসরাইল-ফিলিস্তিন সমঝোতা প্রক্রিয়া পুনরায় শুরু করতে জাতিসংঘে রাশিয়ার আহবান •রোহিঙ্গা সংকটের টেকসই সমাধানে নমপেনের সহযোগিতা কামনা ঢাকার •মিয়ানমার রোহিঙ্গাদের ফেরত নিতে সম্মত •বাংলাদেশে পালিয়ে আসা রোহিঙ্গা নারী: “আঁর পোয়াইন্দার বাপ ইঞ্জিনিয়ার আছিল” •বাবা-মাকে ছাড়াই বাংলাদেশে তেরোশো রোহিঙ্গা শিশু
Untitled Document
  • সর্বশেষ সংবাদ
  • সবচেয়ে পঠিত
  • এক্সক্লুসিভ

Top
Untitled Document