/* */
   Wednesday,  Sep 26, 2018   12:20 AM
Untitled Document Untitled Document
শিরোনাম: •পবিত্র আশুরা উপলক্ষে নিশ্ছিদ্র নিরাপত্তা ব্যবস্থা নেয়া হয়েছে : আছাদুজ্জামান মিয়া •বান্দরবানে কৃষি ব্যাংকের উদ্যোগে সিংগেল ডিজিট সুদে ঋণ বিতরণ •সৌদি আরবে পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খানের প্রথম বিদেশ সফর •জাতিসংঘ অধিবেশনে যোগদিতে শুক্রবার প্রধানমন্ত্রীর লন্ডনের উদ্দেশে ঢাকা ত্যাগ •রোহিঙ্গা বসতিতে কক্সবাজারের জীববৈচিত্র্য হুমকির মুখে : ইউএনডিপি •মর্যাদার লড়াইয়ে আজ মুখোমুখি ভারত ও পাকিস্তান •সংসদে জাতীয় দক্ষতা উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ বিল, ২০১৮ পাস
Untitled Document

পাকিস্তানের সঙ্গে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় সম্পর্ক ছিন্ন করল

তারিখ: ২০১৫-১২-১৪ ২৩:৪৭:০২  |  ৪৩৯ বার পঠিত

0 people like this
Print Friendly and PDF
« আগের সংবাদ পরের সংবাদ»

পাকিস্তানের সঙ্গে সব ধরণের সম্পর্ক ছিন্ন করল ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়। আজ সোমবার থেকে বিষয়টি কার্যকরও হলো।

সোমবার বিশ্ববিদ্যালয়ের সিন্ডিকেটের এক জরুরি বৈঠক শেষে সাংবাদিকদের এ সিদ্ধান্ত জানান বিশ্ববিদ্যালয়ে উপাচার্য অধ্যাপক ড. আ আ ম স আরেফিন সিদ্দিক। 

এদিকে দেশের ৩৭টি পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়ও খুব শিগগিরই পাকিস্তানের সঙ্গে সব সম্পর্ক ছিন্ন করবে বলে জানিয়েছেন বাংলাদেশ শিক্ষক সমিতি ফেডারেশনের সভাপতি অধ্যাপক ড. ফরিদ উদ্দিন আহমেদ।

আরেফিন সিদ্দিক বলেন, পাকিস্তান ১৯৭১ সালের ২৫ মার্চ কালোরাত্রি থেকে শুরু করে দীর্ঘ ৯ মাস ধরে এ দেশে বিশেষ করে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক-শিক্ষার্থী, কর্মকর্তা-কর্মচারীদের ওপর গণহত্যা চালিয়ে, যা তারা অস্বীকার করেছে। এমন মিথ্যাচারী রাষ্ট্রের সঙ্গে কোনো ধরনের সম্পর্ক ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় রাখতে পারে না। যতদিন পর্যন্ত তারা গণহত্যা, হত্যা ও নির্যাতনের কথা স্বীকার করবে না ততদিন পর্যন্ত তাদের সঙ্গে এ প্রতিষ্ঠান কোনো ধরনের সম্পর্ক রাখবে না।

এসময় রাষ্ট্রীয়ভাবে পাকিস্তানের সঙ্গে সব ধরনের সম্পর্ক ছিন্ন করার জন্যও সরকারের প্রতি আহ্বান জানান উপাচার্য আরেফিন সিদ্দিক। এ ছাড়া জাতিসংঘ, সার্কসহ যেসব আন্তর্জাতিক সংস্থায় পাকিস্তানের সদস্যপদ রয়েছে, সেগুলোর বাতিলের জন্য যেসব ব্যবস্থা নেওয়া প্রয়োজন, সেগুলো নেওয়ার জন্যও সরকারের প্রতি আহ্বান জানান তিনি। 

উপাাচার্য জানান, এখন থেকে নতুন করে আমাদের কোনো শিক্ষার্থী পাকিস্তানে উচ্চশিক্ষার জন্য যাবে না। একইভাবে তাদের কোনো ছাত্রও আমরা গ্রহণ করব না। তবে বর্তমানে যেসব শিক্ষার্থী অধ্যয়নরত রয়েছে তাদের কার্যক্রম যথানিয়মে চলবে। 

১৯৭১ সালে যে ১৯৫ জন পাকিস্তানি সেনাসদস্য গণহত্যার দায়ে অভিযুক্ত হয়েছিলেন তাদের বিচার দাবি করেন। এক্ষেত্রে মারা যাওয়া সৈন্যদের মরণোত্তর বিচার দাবি করেন তিনি। 

এসময় বিশ্ববিদ্যালয়ের উপ-উপাচার্য (শিক্ষা) অধ্যাপক ড. নাসরিন আহমাদ, উপ-উপাচার্য (প্রশাসন) অধ্যাপক ড. সহিদ আকতার হোসাইন, শিক্ষক সমিতির সভাপতি অধ্যাপক ড. ফরিদ উদ্দিন আহমেদ, সাধারণ সম্পদক অধ্যাপক ড. মাকসুদ কামালসহ সিন্ডিকেট সভার সদস্যরা উপস্থিত ছিলেন।

 

 


এ পাতার অন্যান্য সংবাদ

•যোগ্য শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলোর এমপিও ভুক্তির কাজ চলছে : নাহিদ •রাজৈরে স্কুল নির্বাচন সম্পন্ন •আমতলী উপজেলায় প্রাথমিকের ৮০টি প্রধান শিক্ষকের পদ খালি, শিক্ষার বেহাল দশা •ছাত্র বৃত্তি সঠিকভাবে বিতরণের নির্দেশ প্রধানমন্ত্রীর •বাক ও শ্রবণ প্রতিবন্ধীদের জন্য ইশারা ভাষা ইনস্টিটিউট প্রতিষ্ঠা করা হবে : মেনন •ঝিনাইদহে এবার স্কুল ছাত্রীকে বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে ডেকে এনে হত্যাচেষ্টা •আমতলীতে স্কুল ছাত্রীকে যৌন হয়রানি প্রতিবাদ করায় মেয়েসহ মামাকে মারধর •ঝিনাইদহ জেলা শিক্ষক সমিতির প্রতিবাদ সভা
Untitled Document
  • সর্বশেষ সংবাদ
  • সবচেয়ে পঠিত
  • এক্সক্লুসিভ

Top
Untitled Document