/* */
   Friday,  Sep 21, 2018   9 PM
Untitled Document Untitled Document
শিরোনাম: •পবিত্র আশুরা উপলক্ষে নিশ্ছিদ্র নিরাপত্তা ব্যবস্থা নেয়া হয়েছে : আছাদুজ্জামান মিয়া •বান্দরবানে কৃষি ব্যাংকের উদ্যোগে সিংগেল ডিজিট সুদে ঋণ বিতরণ •সৌদি আরবে পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খানের প্রথম বিদেশ সফর •জাতিসংঘ অধিবেশনে যোগদিতে শুক্রবার প্রধানমন্ত্রীর লন্ডনের উদ্দেশে ঢাকা ত্যাগ •রোহিঙ্গা বসতিতে কক্সবাজারের জীববৈচিত্র্য হুমকির মুখে : ইউএনডিপি •মর্যাদার লড়াইয়ে আজ মুখোমুখি ভারত ও পাকিস্তান •সংসদে জাতীয় দক্ষতা উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ বিল, ২০১৮ পাস
Untitled Document

তালতলীতে বন্দোবস্ত জমির বিরোধের জের ধরে প্রতিপক্ষের বাড়ির গাছ কেটে উল্টো বড়ির গাছের মালিকের বিরুদ্ধে মামলা দিয়েছে প্রতিপক্ষরা

তারিখ: ২০১৬-১০-১৫ ২৩:০৭:১৪  |  ২৮২ বার পঠিত

0 people like this
Print Friendly and PDF
« আগের সংবাদ পরের সংবাদ»

তালতলী (বরগুনা ) সংবাদদাতা ঃ তালতলীতে বন্দোবস্ত জমির বিরোধের জের ধরে প্রতিপক্ষের বাড়ির গাছ কেটে উল্টো বড়ির মালিকের বিরুদ্ধে মামলা দিয়েছে প্রতিপক্ষরা। তালতলীর বড়ভাইজোড়া গ্রামে এ ঘটনাটি ঘটেছে। জানা গেছে, বড় ভাইজোড়া গ্রামের বাসিন্দা দিনমজুর আব্দুল মালেক তার স্ত্রীর পৈত্রিক সূত্রে প্রাপ্ত এক খন্ড জমি ও তৎসংলগ্ন ১ নং খতিয়ানের ১০৩৭ নং দাগের খাস জমির উপর বাড়ি নির্মাণ করে বসবাস করে আসছিল। ঐ খাস জমি বন্দোবস্ত পেতে আব্দুল মালেক ২০০৬/৭ সালে ভুমি অফিসে আবেদন করেছিল। কিছুদিন পরে তার অবেদন অফিসে খুজে পায়নি। এ দিকে একই গ্রামের ধনাঢ্য ফারুক কমান্ডার (বর্তমানে বেতাগী ভুমি অফিসের পিয়ন) অফিসের কিছু অসাধু ভুমি কর্মকর্তাদের যোগসাজসে আব্দুল মালেকের আবেদন গায়েব করে তার বড় ছেলে নজরুল ইসলামের নামে অফিসে ভূয়া তথ্য দিয়ে ঐ জমি বন্দোবস্ত নেয়। দরিদ্র আব্দুল মালেকের বাড়ির মধ্যে জমি দখল না দেয়ায় প্রভাবশালী ফারুক কমান্ডার তার ছেলে নজরুলকে দিয়ে বিভিন্ন সময় উক্ত মালেক ও তার আত্মীয় স্বজনদের বিরুদ্ধে একের পর এক মিথ্যা মামলা দিয়ে আসছিল। তাদের কে বন্দোবস্ত জমির বাড়ি থেকে উচ্ছেদ করতে গত ৪ অক্টোবর মঙ্গলবার আব্দুল মালেক ও তার স্ত্রী বাড়ি না থাকায় ফারুক কমান্ডরের সুচতুর ছেলে নজরুল মঙ্গলবার মালেকের বাড়ির প্রায় ৩৫ টিকলা গাছ,২ টিপেয়ারা গাছ, ২টিমেহগনি ও ৭টি লাউগাছ কেটে আমতলী মেজিষ্ট্রেট কোর্টে উল্টো আব্দুল মালেকদের বিরুদ্ধে মামলা করে। মামলা নং১০৬৭/১৬। বিজ্ঞ বিচারক মামলাটি তদন্তের জন্য তালতলী উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যন খলিল হালাদারের উপর দায়িত্ব দেন।এ দিকে মালেক এ ঘটনাটি সাংবাদকদের জানালে কয়েকজন সাংবাদিক ঘটনাস্থলে গেলে ফারুক কমান্ডারের ছেলে নজরুল, ভাই বারেক হাওলাদার এ সময় সাংবাদিকদেরকেও গালিগালাজ করে।

 


এ পাতার অন্যান্য সংবাদ

•পবিত্র আশুরা উপলক্ষে নিশ্ছিদ্র নিরাপত্তা ব্যবস্থা নেয়া হয়েছে : আছাদুজ্জামান মিয়া •হলি আর্টিজান মামলার অভিযোগপত্র দাখিল •আমতলীতে ৫শ’পিচ ইয়াবাসহ মাদক বিক্রেতা আটক •এমপি হোক আর এমপির ছেলে হোক কাউকে ছাড় নয়: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী,আসাদুজ্জামান খাঁন কামাল •বেসিক ব্যাংকের দুর্নীতি মামলার সব তদন্ত কর্মকর্তাকে আদালতে তলব •খালেদা জিয়ার মাথায় আরো যেসব মামলা ঝুলছে •নিখোঁজ হবার প্রায় চারমাস পর 'গ্রেপ্তার' বাংলাদেশ কল্যাণ পার্টির মহাসচিব, চারদিনের রিমান্ডে •ডেসটিনির দুই শীর্ষ কর্তার আবেদন খারিজ
Untitled Document
  • সর্বশেষ সংবাদ
  • সবচেয়ে পঠিত
  • এক্সক্লুসিভ

Top
Untitled Document