/* */
   Tuesday,  Jun 19, 2018   06:31 AM
Untitled Document Untitled Document
শিরোনাম: •বাংলাদেশের ঢাকায় কিভাবে কাটে তরুণীদের অবসর সময়? •রাশিয়া বিশ্বকাপ ফুটবল ২০১৮: ইতিহাসের বিচারে কে চ্যাম্পিয়ন হতে পারে •বাংলাদেশের উপকূলের কাছে রাসায়নিক বহনকারী জাহাজে আগুন •ঈদের যুদ্ধবিরতিতে অস্ত্র ছাড়াই কাবুলে ঢুকলো তালেবান যোদ্ধারা •বিশ্বব্যাংক প্রাথমিক শিক্ষা উন্নয়নে ৭শ’ মিলিয়ন ডলার দেবে •ঢাকা মহানগরীতে ৪০৯টি ঈদ জামাত অনুষ্ঠিত •জাতীয় ঈদগাহে রাষ্ট্রপতির ঈদের নামাজ আদায়
Untitled Document

একনেকে ৯৪৪৩ কোটি ৬৪ লাখ টাকা ব্যয়ে ১০ প্রকল্প অনুমোদন

তারিখ: ২০১৬-১০-২৫ ২৩:৩৬:১২  |  ২০৯ বার পঠিত

0 people like this
Print Friendly and PDF
« আগের সংবাদ পরের সংবাদ»

দারিদ্র্য বিমোচন কর্মসূচিকে বেগবান করতে ‘একটি বাড়ী একটি খামার’ সংশোধিত প্রকল্পসহ ৯ হাজার ৪৪৩ কোটি ৬৪ লাখ টাকা ব্যয়ে মোট ১০টি প্রকল্পের চূড়ান্ত অনুমোদন দিয়েছে জাতীয় অর্থনৈতিক পরিষদের নির্বাহী কমিটি (একনেক)।
প্রকল্প ব্যয়ের পুরো অর্থ বাংলাদেশ সরকার বহন করবে।
মঙ্গলবার প্রধানমন্ত্রী কার্যালয়ে মন্ত্রিপরিষদ সভাকক্ষে প্রধানমন্ত্রী ও একনেক চেয়ারপার্সন শেখ হাসিনার সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত একনেক সভায় এ অনুমোদন দেয়া হয়।
একনেক সভাশেষে আগারগাঁও এনইসি সম্মেলনকক্ষে এক প্রেস ব্রিফিংয়ে পরিকল্পনামন্ত্রী আ হ ম মুস্তাফা কামাল প্রকল্প সম্পর্কে বিস্তারিত ব্রিফ করেন।
তিনি বলেন, দারিদ্রতা আমাদের প্রধান শত্রু। দারিদ্র্য নিমূর্ল হওয়ার আগ পর্যন্ত এর বিরুদ্ধে আমাদের লড়াই চলবে। এজন্য একটি বাড়ী একটি খামার- ৩য় সংশোধিত প্রকল্প নেয়া হয়েছে । এর মাধ্যমে আমরা কৃষি আয়বর্ধক সমিতি গঠন করতে চাই। সমিতির সদস্যরা ক্ষুদ্র ঋণের পরিবর্তে ক্ষুদ্র সঞ্চয় তৈরির মাধ্যমে দারিদ্র বিমোচনে ভূমিকা রাখবে।
তিনি জানান, প্রকল্পের আওতায় প্রতি সমিতিতে অতি দরিদ্র ও ভিক্ষুক পরিবারের ৬০ জন সদস্য থাকবে। সুবিধাভোগিদের সাপ্তাহিক সঞ্চয়ের সমপরিমাণ সরকারি অনুদান প্রদান করে মূলধন গঠন করা হবে। এরা পরবর্তীতের পল্লী সঞ্চয় ব্যাংকের গ্রাহক হিসেবে ক্ষুদ্র উদ্যোক্তা হিসেবে অত্মপ্রকাশের সুযোগ পাবে।
সংশোধিত এই প্রকল্পের প্রাক্কলিত ব্যয় ধরা হয়েছে-৮ হাজার ১০ কোটি ২৭ লাখ টাকা। এর পুরোটাই সরকার বহন করবে। দেশের ৮ বিভাগের ৬৪ জেলায় ৪৯০টি উপজেলার ৪ হাজার ৫৫০টি ইউনিয়নের ৪০ হাজার ৯৫০টি ওয়ার্ডে প্রকল্প বাস্তবায়ন হবে । জুলাই ২০০৯ থেকে জুন ২০২০ মেয়াদে প্রকল্প বাস্তবায়ন হবে।
সভায় অনুমোদিত অন্য প্রকল্পসমূহ হচ্ছে, মাওলানা ভাসানী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় শক্তিশালীকরণ প্রকল্প। এর প্রাক্কলিত ব্যয় ৩৪৫ কোটি ৭৭ লাখ টাকা। বিএএফএ বঙ্গবন্ধু কমপ্লেক্স নির্মাণ, যশোর-১ম সংশোধিত প্রকল্প । এতে ব্যয় হবে ২৭১ কোটি ১৫ লাখ টাকা । ঢাকা সিএমএইচ এ ক্যান্সার সেন্টার নির্মাণ প্রকল্পে ব্যয় ধরা হয়েছে ৯৮ কোটি ৬ লাখ টাকা । গোবিন্দগঞ্জ-ছাতক-দোয়ারা বাজার সড়কের ছাতকে সুরমা নদীর উপর সেতুর অবশিষ্ট কাজ সমাপ্তকরণ প্রকল্প। এর প্রাক্কলিত ব্যয় ১১২ কোটি ৯৯ লাখ টাকা।
এছাড়া ‘জামালপুর পল্লী উন্নয়ন একাডেমি প্রতিষ্ঠাকরণ’ প্রকল্প, এর প্রাক্কলিত ব্যয় ১২৪ কোটি ৫০ লাখ টাকা। দেশের ৩টি উপকূলীয় জেলার ৪টি স্থানে আনুষঙ্গিক সুবিধাদিসহ মৎস্য অবতরণ কেন্দ্র স্থাপন (১ম সংশোধিত) প্রকল্প। এতে ব্যয় হবে ৫৯ কোটি ৭০ লাখ টাকা। আড়িয়াল খাঁ নদীর ভাঙন হতে হাজী শরীয়তউল্লাহ সেতু সংলগ্ন ঢাকা-মাওয়া-ভাংগা-খুলনা জাতীয় মহাসড়ক রক্ষা প্রকল্পের প্রাক্কলিত ব্যয় ৫৪ কোটি ৫৯ লাখ টাকা। রাজৈর-কোটালীপাড়া বন্যা নিয়ন্ত্রণ, নিস্কাশন ও সেচ প্রকল্প। এতে ব্যয় হবে ৯৫ কোটি ৪২ লাখ টাকা।(বাসস)


এ পাতার অন্যান্য সংবাদ

•বিশ্বব্যাংক প্রাথমিক শিক্ষা উন্নয়নে ৭শ’ মিলিয়ন ডলার দেবে •ব্যাংকগুলোতে শৃঙ্খলা ফিরিয়ে আনা এবং মান উন্নয়নের ওপর জোর দিয়েছেন ব্যবসায়ি নেতারা •২০২৪ সালের আগেই উন্নয়নশীল দেশে পরিণত হবে বাংলাদেশ : এলজিআরডি মন্ত্রী •রিজার্ভ চুরির ঘটনায় আরসিবিসির বিরুদ্ধে মামলা করবে বাংলাদেশ ব্যাংক •একনেকে ১৩ প্রকল্পের অনুমোদন •ন্যূনতম ১৬ হাজার টাকা বেতন চান বাংলাদেশের তৈরি পোশাক শ্রমিকরা •ভারত থেকে গরুর মাংস আমদানির প্রস্তাব নাকচ •কম্বোডিয়ার সঙ্গে ১০টি সমঝোতা স্মারক স্বাক্ষরিত
Untitled Document
  • সর্বশেষ সংবাদ
  • সবচেয়ে পঠিত
  • এক্সক্লুসিভ

Top
Untitled Document