/* */
   Monday,  Jun 25, 2018   11 PM
Untitled Document Untitled Document
শিরোনাম: •আওয়ামী লীগের ইতিহাস মানুষের অধিকার প্রতিষ্ঠার ইতিহাস : প্রধানমন্ত্রী •জাতীয় উন্নয়নের ধারা অব্যাহত রাখতে নিষ্ঠার সঙ্গে কাজ করুন : রাষ্ট্রপতি •এমপি হোক আর এমপির ছেলে হোক কাউকে ছাড় নয়: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী,আসাদুজ্জামান খাঁন কামাল • তিন সিটিতে আওয়ামী লীগের মনোনয়ন পেলেন যারা •নাইজেরিয়ার জয়ে আর্জেন্টিনার স্বপ্ন বড় হলো •আওয়ামী লীগের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীতে নানা কর্মসূচি •টেলিটকের ফোরজির জন্য অপেক্ষা আরো চার মাস
Untitled Document

আমতলী ও তালতলী কৃষি জমি ও বাধেঁর মাটি ইটভাটার গ্রাসে!

তারিখ: ২০১৭-০১-০৮ ২২:৫৬:৪১  |  ২৩২ বার পঠিত

0 people like this
Print Friendly and PDF
« আগের সংবাদ পরের সংবাদ»

আমতলী (বরগুনা) প্রতিনিধি
বরগুনার আমতলী ও তালতলী উপজেলার কৃষকরা ইটভাটার মালিকদের প্রলোভনে পড়ে দেদারসে বিক্রি করছে কৃষি জমির উপরিভাগের উর্বর মাটি। এতে হুমকির মুখে পড়েছে ফসল আবাদ ও বন্যা নিয়ন্ত্রণ বাঁধ। কৃষিবিদরা বলেছেন, এভাবে মাটি কাটায় জমি উর্বরতা হারাচ্ছে। অবিলম্বে মাটি কাটা বন্ধ না হলে বড় ধরনের ফলন বিপর্যয়ের মুখে পড়বে কৃষকরা। আমতলী ও তালতলী উপজেলায় ড্রাম চিমনি এবং পাজা পদ্ধতির ২৫টি ইটভাটা রয়েছে। এ ইটভাটাগুলোতে বছরে কয়েক কোটি ইট পোড়ানো হয়। ইট পোড়ানোর জন্য প্রয়োজনীয় মাটি ভাটার মালিকরা জমির মালিকের কাছ থেকে ১ হাজার ঘনফুট মাটি ১ হাজার টাকা দামে ক্রয় করছে। জমির মালিকরা না বুঝে উপরিভাগের উর্বর মাটি বিক্রি করে দিচ্ছে। চরের মাটি কেটে ট্রলারে করে আনা হচ্ছে ইটভাটায়। এদিকে, উপজেলার বন্যা নিয়ন্ত্রণ বাঁধের বক্স চরের মাটি ইটভাটার মালিকরা কেটে নিচ্ছে। অভিযোগ রয়েছে, আঠারোগাছিয়া ইউনিয়নের বাদুরা, সোনাখালী, চাউলা, আমতলী সদর ইউনিয়নের সেকান্দারখালী, বান্দ্রা ও খলিয়ান এলাকার বাঁধের চরের মাটি ভাটার মালিকরা কেটে নিচ্ছে। আবার অনেকে ইটভাটায় মাটি বিক্রির জন্য কৃষি জমি কেটে পুকুর খনন করেছে। এর ফলে হাজার হাজার একর কৃষি জমির উর্বরতা হারাচ্ছে এবং বন্যা নিয়ন্ত্রণ বাঁধ মারাÍক হুমকির মধ্যে রয়েছে। মাটি কাটা শ্রমিক সর্দার আলাউদ্দিন জানান, আঠারোগাছিয়া ইউনিয়নের তিনটি ইটভাটায় বন্যা নিয়ন্ত্রণ বাঁধের বক্স চরের দখলীয় জমির মালিকদের কাছ থেকে মাটি কিনে কেটে আনা হচ্ছে। আমতলী উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা এসএম বদরুল আলম বলেন, কৃষি জমির উপরের ৬ ইঞ্চি থেকে দেড়ফুট পর্যন্ত মাটির উপরিভাগে রাসায়নিক উপাদান থাকে। এ মাটি কেটে নেয়া হলে যেমন জমি উর্বরতা হারাবে তেমনি ফসল আবাদে বিপর্যয়ের আশঙ্কা রয়েছে। আমতলী উপজেলা নির্বাহী অফিসার মো. মুশফিকুর রহমান মুঠোফোনে বলেন, খোঁজ নিয়ে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়া হবে।


এ পাতার অন্যান্য সংবাদ

•স্বেচ্ছায় খালের স্থাপনা ভেঙ্গে নেয়ায় ২২ ভূমিহীনসহ ৩৫ পরিবারকে পুনর্বাসনের উদ্যোগ •আমতলীতে লঞ্চের দাবীতে মানববন্ধন •আমতলীতে ফরমালিন যুক্ত আম জব্দ ৪ হাজার টাকা জরিমানা •কুড়িগ্রামের রৌমারীতে সরিষা ক্ষেত থেকে এবার ১০ কোটি টাকার মধু উৎপাদন হবে •বাংলাদেশের চট্টগ্রামে ৫০ হাজার ইয়াবাসহ গ্রেপ্তার দুইজন সেনা সদস্য •কলাপাড়ায় নির্যাতনের শিকার এক গৃহকর্মী হাসপাতালে কাতরাচ্ছে ॥ •ঝিনাইদহে জমকালো আয়োজনে কমিউনিটি পুলিশিং ডে পালিত •ঝিনাইদহে চালকের মাথায় হেলমেট নেই, ৬০ মোটর সাইকেল চালকের বিরুদ্ধে মামলা
Untitled Document
  • সর্বশেষ সংবাদ
  • সবচেয়ে পঠিত
  • এক্সক্লুসিভ

Top
Untitled Document