/* */
   Wednesday,  Jun 20, 2018   11:39 AM
Untitled Document Untitled Document
শিরোনাম: •বাংলাদেশের ঢাকায় কিভাবে কাটে তরুণীদের অবসর সময়? •রাশিয়া বিশ্বকাপ ফুটবল ২০১৮: ইতিহাসের বিচারে কে চ্যাম্পিয়ন হতে পারে •বাংলাদেশের উপকূলের কাছে রাসায়নিক বহনকারী জাহাজে আগুন •ঈদের যুদ্ধবিরতিতে অস্ত্র ছাড়াই কাবুলে ঢুকলো তালেবান যোদ্ধারা •বিশ্বব্যাংক প্রাথমিক শিক্ষা উন্নয়নে ৭শ’ মিলিয়ন ডলার দেবে •ঢাকা মহানগরীতে ৪০৯টি ঈদ জামাত অনুষ্ঠিত •জাতীয় ঈদগাহে রাষ্ট্রপতির ঈদের নামাজ আদায়
Untitled Document

রামগঞ্জে চোরাই সিএনজি উদ্ধার আটক- ১

তারিখ: ২০১৭-০৩-২৩ ১৭:০৩:০৩  |  ২২৯ বার পঠিত

0 people like this
Print Friendly and PDF
« আগের সংবাদ পরের সংবাদ»

 
রামগঞ্জ (লক্ষ্মীপুর) প্রতিনিধি ঃ
গতকাল রামগঞ্জ থানাধীন মোহাম্মদিয়া বাজার পুলিশ তদন্ত কেন্দ্রের এসআই মোঃ বিল্লাল হোসেনের নেতৃত্বে ফেনী জেলার ছাগলনাইয়া থানা পুলিশের সহযোগীতায় ছাগলনাইয়া জিরো পয়েন্টে অভিযান চালিয়ে চোরাইকৃত সিএনজিসহ আঞ্চলিক সিএনজি চোর চক্রের সদস্য আবুল হোসেন প্রকাশ চৌধুরীকে গ্রেফতার করে রামগঞ্জ থানা নিয়ে আসে।
সূত্রে জানায়, গত ০৯/০৩/২০১৭ইং তারিখে রাতে রামগঞ্জ থানার করপাড়া ইউনিয়নের শ্যামপুর বাজারের গ্যারেজ থেকে সিএনজিটি চুরি হয়। সিএনজি চালক রাসেদ জানায়, প্রতিদিনের মত ০৯/০৩/২০১৭ইং এ রাতে আনুমানিক ১২.৩০ মিনিটের সময় স্থানীয় শ্যামপুর বাজারের গ্যারেজে রেখে বাড়ি যাই। কিন্তু পরের দিন ভোর ৬.০০ টায় সিএনজি’র জন্য গ্যারেজে গেলে সিএনজিটি না দেখে অনেক খোঁজাখুঁজি করে পরে রামগঞ্জ থানায় একটি অভিযোগ দায়ের করি। পরে এটি বিচক্ষন অফিসার এসআই বেলালকে দেওয়া হলে তিনি তার পরিকল্পনা মতো খুঁজতে থাকে। একপর্যায়ে খবর পেয়ে ছাগলনাইয়া থানা পুলিশের সহযোগীতায় ছাগলনাইয়া জিরো পয়েন্টে অভিযান চালিয়ে চোরাইকৃত সিএনজিটি উদ্ধার করে এবং আঞ্চলিক সিএনজি চোর চক্রের সদস্য আবুল হোসেনকে গ্রেফতার করে।
এদিকে সিএনজি’র মালিক শারমিন সুলতানা সন্তোষ প্রকাশ করে বলেন, এত অল্প সময়ের মধ্যে সৎ, নির্ভীক, বিচক্ষন পুলিশ অফিসার এসআই মোঃ বিল্লাল হোসেন আমার চুরি হওয়া সিএনজি’টি উদ্ধার করায় আমি আনন্দিত সেই সাথে আমি আসামী আবুল হোসেনের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবী করছি। এলাকা ঘুরে জানা যায়, আঞ্চলিক সিএনজি’র চোর চক্রের সদস্য আবুল হোসেনের বিরুদ্ধে মাদকসহ পূর্বের একাদিক অভিযোগ রয়েছে।
এসআই বিল্লাল মোহাম্মদিয়া বাজার পুলিশ পাড়িতে আসার পরে এলাকায় সন্ত্রাস, চাঁদাবাজ ও মাদক ব্যবসায়ীরা রীতিমত এলাকা ছেড়ে পালিয়ে বেড়াচ্ছে। এরকম সৎ, যোগ্য, নির্ভীক অপরাধীদের আতঙ্ক পুলিশ অফিসার থাকলে এলাকার মাদক চাঁদাবাজ, ইভটেজিং সহ আইন শৃঙ্খলা পরিস্থিতি স্বাভাবিক থাকবে বলে আশাপ্রকাশ করেন এলাকাবাসী।
 


এ পাতার অন্যান্য সংবাদ

•তথ্য মন্ত্রণালয়ের ১৩ সংস্থার সঙ্গে বার্ষিক কর্মসম্পাদন চুক্তি •কলাপাড়া রিপোর্টার্স ইউনিটির আয়োজনে ইফতার ও দোয়া-মিলাদ অনুষ্ঠিত •চলচ্চিত্র পরিবারের সাথে তথ্যসচিবের মতবিনিময় •ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন মূলধারার গণমাধ্যমকে নিরাপত্তা দেবে •সাম্প্রদায়িক অপশক্তি নির্মূলের অন্যতম হাতিয়ার চলচ্চিত্র : তথ্যমন্ত্রী •বাংলাদেশে সন্ধান মিলেছে নিখোঁজ সাংবাদিক উৎপল দাসের •সংসদে কমপক্ষে ৩০ শতাংশ নারী সদস্য দেখতে চায় সিডব্লিউপি স্টিয়ারিং কমিটি •শূকরের দেহের অংশ মানুষের শরীরে প্রতিস্থাপনে অগ্রগতি
Untitled Document
  • সর্বশেষ সংবাদ
  • সবচেয়ে পঠিত
  • এক্সক্লুসিভ

Top
Untitled Document