/* */
   Wednesday,  Jun 20, 2018   11:39 AM
Untitled Document Untitled Document
শিরোনাম: •বাংলাদেশের ঢাকায় কিভাবে কাটে তরুণীদের অবসর সময়? •রাশিয়া বিশ্বকাপ ফুটবল ২০১৮: ইতিহাসের বিচারে কে চ্যাম্পিয়ন হতে পারে •বাংলাদেশের উপকূলের কাছে রাসায়নিক বহনকারী জাহাজে আগুন •ঈদের যুদ্ধবিরতিতে অস্ত্র ছাড়াই কাবুলে ঢুকলো তালেবান যোদ্ধারা •বিশ্বব্যাংক প্রাথমিক শিক্ষা উন্নয়নে ৭শ’ মিলিয়ন ডলার দেবে •ঢাকা মহানগরীতে ৪০৯টি ঈদ জামাত অনুষ্ঠিত •জাতীয় ঈদগাহে রাষ্ট্রপতির ঈদের নামাজ আদায়
Untitled Document

ভবনের অভাবে- রামগঞ্জে ১১টি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে পাঠদান চলছে খোলা আকাশের নিচে,

তারিখ: ২০১৭-০৩-২৫ ২১:০৪:৫৬  |  ১৪৫ বার পঠিত

0 people like this
Print Friendly and PDF
« আগের সংবাদ পরের সংবাদ»

 
 
মোঃ জাবেদ হোসেন, রামগঞ্জ (লক্ষ্মীপুর) প্রতিনিধি ঃ
লক্ষ্মীপুরের রামগঞ্জে ১১টি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে বিগত ৫ বছর থেকে ভবনের অভাবে শিক্ষকরা বাধ্য হয়ে ছাত্রছাত্রীদেরকে খোলা আকাশের নিচে অথবা বারান্দায় পাঠদান করাতে হচ্ছে। ফলে প্রতিনিয়ত রৌদ, ঝড়-বৃষ্টিসহ নানা দূর্ভোগে ব্যাহত হচ্ছে শিক্ষাকার্যক্রম।
সরেজমিনে গিয়ে গিয়ে দেখা যায়-ভোলাকোট ইউনিয়নের নাগরাজারামপুর সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক জালাল আহম্মদ ৩য় শ্রেনীর ক্লাশ নিচ্ছেন জরার্জীন স্কুলভবনের সামনে খোলা আকাশের নীচে, পাশে নাগ-রাজারামপুর ফোরকানীয়া মাদ্রাসার একটি রুমের একপাশে অফিস অপর পাশে ৪র্থ ও ৫ম শ্রেণীর ছাত্র-ছাত্রীদেরকে ঠাসাঠাসি ভাবে বসিয়ে চলছে পাঠদান। একই চিত্র গিয়ে দেখা যায় পূর্ব করপাড়া সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ে সেখানে শিক্ষিকরা ছাত্রছাত্রীদেরকে বারিন্দায় বসিয়ে একটি ক্লাশ শেষ হলে আরেকটি ক্লাশ নিচ্ছে। এ সময় অন্য ছাত্রছাত্রীরা বাহিরে খেলা খেলাধুলা করছে। এভাবে রামগঞ্জ উপজেলায় মুক্তারপুর, দক্ষিন জগতপুর, পূর্ব দরবেশপুর, ভোলাকোট, শেফালীপাড়া তরুলতা, নাগমুদ মজিদিয়া, রতনপুর কালিতলা, উত্তর হাজীপুর ও নয়নপুর সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের একটিমাত্র ভবন ঝুকিপূর্ন হওয়ায় কর্তৃপক্ষ বিগত ৫ বছর আগে পরিত্যক্ত ঘোষনা করে।সে থেকে শিক্ষকরা ছাত্রছাত্রীদের নিয়ে বিপাকে পড়ে কেউ খোলা আকাশ নীচে, বারান্দা অথবা পাশে অস্থায়ী ঘর করে চালিয়ে যাচ্ছে শিক্ষা কার্যক্রম। নাগরাজারামপুর সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক রহিমা আক্তার জানান, স্কুল একটিমাত্র ভবন, ২০১২ সালে পরিত্যক্ত ঘোষনা করা হয়। তারপর থেকে উপজেলা শিক্ষা অফিস, উপজেলা চেযারম্যান, স্থানীয় সংসদ সদস্যের কাছে বার বার আবেদন করি এবং সরাসরিও যোগাযোগ করি। এখন একটি ভবন হয়নি। ১২১জন ছাত্রছাত্রী নিয়ে বর্তমানে বিপাকে আছি।
উপজেলা শিক্ষা অফিসার মনিরুজ্জামান মোল্লা জানান, খোলা আকাশের নীচে পাঠদান চলছে এমন ১১টি বিদ্যালয়ের তালিকা করে জরুরি ভিত্তিতে ভবন নির্মানের জন্য উর্ধতন কর্তৃপক্ষ বরাবর পত্র চালাচালি করে আসছি।
রামগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোহাম্মদ আবু ইউছুফ জানান, যে সমস্ত স্কুল গুলিতে ভবন নেই তার তালিকা করে পাঠানো হয়েছে আশা করছি খুবশীঘ্রই ভবন গুলি হবে।
স্থানীয় সংসদ সদস্য ও বাংলাদেশ তরিকত ফেডারেশনের মহাসচিব লায়ন এম এ আউয়াল জানান, এ ব্যাপারে আমি অবগত আছি, চলতি অর্থ বছরে সংশ্লিষ্ট বিভাগে পাশ হয়ে ভবন গুলি হবে।


এ পাতার অন্যান্য সংবাদ

•জেএসসি-জেডিসিতে কমানো হল ৩ বিষয় •ছাত্র বৃত্তি সঠিকভাবে বিতরণের নির্দেশ প্রধানমন্ত্রীর •বাক ও শ্রবণ প্রতিবন্ধীদের জন্য ইশারা ভাষা ইনস্টিটিউট প্রতিষ্ঠা করা হবে : মেনন •ঝিনাইদহে এবার স্কুল ছাত্রীকে বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে ডেকে এনে হত্যাচেষ্টা •আমতলীতে স্কুল ছাত্রীকে যৌন হয়রানি প্রতিবাদ করায় মেয়েসহ মামাকে মারধর •ঝিনাইদহ জেলা শিক্ষক সমিতির প্রতিবাদ সভা •দলীয় নেতাকর্মীদের মাঝে কোন্দল শুরু হওয়ায় শৈলকুপায় ১২টি প্রাইমারী স্কুলের অভিভাবক নির্বাচন বন্ধ •কলাপাড়ায় শিশুদের সুরক্ষা দাবীতে মানববন্ধন ও আলোচনা সভা
Untitled Document
  • সর্বশেষ সংবাদ
  • সবচেয়ে পঠিত
  • এক্সক্লুসিভ

Top
Untitled Document