/* */
   Monday,  Sep 24, 2018   04:44 AM
Untitled Document Untitled Document
শিরোনাম: •পবিত্র আশুরা উপলক্ষে নিশ্ছিদ্র নিরাপত্তা ব্যবস্থা নেয়া হয়েছে : আছাদুজ্জামান মিয়া •বান্দরবানে কৃষি ব্যাংকের উদ্যোগে সিংগেল ডিজিট সুদে ঋণ বিতরণ •সৌদি আরবে পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খানের প্রথম বিদেশ সফর •জাতিসংঘ অধিবেশনে যোগদিতে শুক্রবার প্রধানমন্ত্রীর লন্ডনের উদ্দেশে ঢাকা ত্যাগ •রোহিঙ্গা বসতিতে কক্সবাজারের জীববৈচিত্র্য হুমকির মুখে : ইউএনডিপি •মর্যাদার লড়াইয়ে আজ মুখোমুখি ভারত ও পাকিস্তান •সংসদে জাতীয় দক্ষতা উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ বিল, ২০১৮ পাস
Untitled Document

মার ধর করে দিনভর তাকে বিদ্যালয়ের একটি কক্ষে আটকে রাখে আমতলীতে শিশু শিক্ষার্থীকে মারধোর মামলা দায়ের

তারিখ: ২০১৭-০৪-২৯ ২৩:২৬:১১  |  ১৬৭ বার পঠিত

0 people like this
Print Friendly and PDF
« আগের সংবাদ পরের সংবাদ»

 

আমতলী (বরগুনা) প্রতিনিধি  ।।
বরগুনার আমতলীতে ৬ষ্ঠ শ্রেণির এক ছাত্রকে স্কুলের পরিচালক কর্তৃক  মারধোরের অভিযোগে মামলা দায়ের করেছেন   ছাত্রটির বাবা  মো. মোশারেফ হোসেন। মামলা ও শিশুটির পরিবার সূত্রে জানা জায়,  আমতলী পৌরশহরের আব্দুল্লাহ সুপার মার্কেটের দ্বোতালায় ব্যাক্তি পর্যায়ে প্রতিষ্ঠিত আইডিয়াল স্কুলের ৬ষ্ঠ শ্রেণির ছাত্র মান্না (১২) দুই দিন স্কুলে এসে ঠিকমত ক্লাশ করতে না পাড়ায় বৃহস্পতিবার সকাল সাড়ে ৯টায় শ্রেণি কক্ষে বসে তাকে বেদম মার ধর করে ওই বিদ্যালয়ের পরিচালক মো: আবু হানিফ। মার ধর করে দিনভর তাকে বিদ্যালয়ের একটি কক্ষে আটকে রাখে। অনেক খোঁজা খুজির পর ওই দিন রাত ৮ টার সময় মান্নাকে আমতলী আইডিয়াল স্কুলের একটি কক্ষ থেকে তার বাবা মো: মোশারফ হোসেন  উদ্ধার করে আমতলী হাসপাতালে ভর্তি করে। মারধরের কারনে মান্নার শরীরের বিভিন্ন জায়গা ফুলে লাল হয়ে গেছে।  মারধরের শিকার শিশু মান্না জানান, ছারে মোরে লাঠি দিয়া মাইর ধইর কইরা একটা রুমে হারাদিন আটকাইয়া রাখছে।  
শিশুটির পিতা মো. মোশারেফ হোসেন জানান, স্কুলে ঠিকমত ক্লাশ না করায় আমার ছেলে মান্নাকে আইডিয়াল স্কুলের পরিচালক মো: আবু হানিফ লাঠি দিয়ে বেদম মারধর করে একটি কক্ষে সারাদিন আটকে রাখে। অনেক খোঁজা খুজিরপর তাকে বিদ্যালয়ের একটি কক্ষের বন্ধীদশা থেকে  উদ্ধার করে বৃহস্পতিবার রাতে তাকে আমতলী হাসপাতালে ভর্তি করি।
আমতলী হাসাপতালের জরুরী বিভাগের চিকিৎসক উপসহকারী কমিউনিটি মেডিকেল অফিসার মো: হারুন অর রশিদ জানান, শিশুটির হাতে পায়ে পিঠে এবং রানে লাঠির অনেক আঘাতের চিহ্ন রয়েছে। অনেক জায়গা ফুলে লাল হয়ে আছে।
নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক কয়েক জন অভিভাবক জানান, আবু হানিফ গুলিশাখালী ইউনিয়নের গোছখালী বহুমুখী মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের বিএসসি শিক্ষক। বর্তমানে সেখানে সে কর্মরত আছে। ওই বিদ্যালয়ে কর্মরত থাকা অবস্থায়  ক্লাশ না করে সে প্রতি দিন স্কুল সময়ে আমতলী শহরের আবদুল্লা সুপার মার্কেটের দোতালায় আইডিয়াল স্কুল  নামে একটি স্কুল খুলে  সেখানে দিনে রাত অবৈধ ভাবে সব সময় ক্লাশ করে আসছেন। হানিফ এর আগেও ওই বিদ্যালয়ের রাব্বি নামের দশম শ্রেণির এক ছাত্রকে  মারধর করে গুরুতর আহত করায় মানসিক ভারসাম্য হারিয়ে ফেলে অনেক চিকিৎসার পর সে সুস্থ হয়।
অভিযুক্ত মো: আবু হানিফ এর মোবাইল ফোনে বার বার (০১৭১১৪৭১৫৭৫) যোগাযোগ করা করা হলে ফোন বন্ধ পাওয়া যায়।
আমতলী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা সহিদ উল্লাহ  বলেন, রাতে শিশুটির পিতা ২০১৩ সলের শিশু আইনের ৭০ ধারায় মামলা দায়ের করেছেন। আসামীকে আমরা গ্রেফতারের চেষ্টা করছি।


এ পাতার অন্যান্য সংবাদ

•ভাঙ্গায় ডাক্তারের বিরুদ্ধে দুর্নীতি ও অনিয়মের অভিযোগ •কলাপাড়ায় জমির সীমানা নির্ধারনকে কেন্দ্র করে ভাই ভাই সংঘর্ষ,আহত ১ ॥ •নাশকতার মামলায় শেখ হাসিনা উইমেন্স কলেজের প্রভাষক গ্রেফতার। •কলাপাড়ায় ইউপি মেম্বারসহ দুইজন গ্রেফতার ॥ ৩৫ পিস ইয়াবা উদ্ধার •কলাপাড়ায় মাদকসহ তিন জন অটক ॥ •তালতলীতে মাদক সহ আটক দুই •লন্ডনে হাইকমিশনের ওপর হামলা বাংলাদেশের ওপর হামলার সমতুল্য : পররাষ্ট্রমন্ত্রী •ঝিনাইদহে মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রন অধিদপ্তর কর্তৃক ফেন্সিডিলসহ মাদক ব্যবসায়ী আটক
Untitled Document
  • সর্বশেষ সংবাদ
  • সবচেয়ে পঠিত
  • এক্সক্লুসিভ

Top
Untitled Document