/* */
   Wednesday,  Sep 26, 2018   12:45 AM
Untitled Document Untitled Document
শিরোনাম: •পবিত্র আশুরা উপলক্ষে নিশ্ছিদ্র নিরাপত্তা ব্যবস্থা নেয়া হয়েছে : আছাদুজ্জামান মিয়া •বান্দরবানে কৃষি ব্যাংকের উদ্যোগে সিংগেল ডিজিট সুদে ঋণ বিতরণ •সৌদি আরবে পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খানের প্রথম বিদেশ সফর •জাতিসংঘ অধিবেশনে যোগদিতে শুক্রবার প্রধানমন্ত্রীর লন্ডনের উদ্দেশে ঢাকা ত্যাগ •রোহিঙ্গা বসতিতে কক্সবাজারের জীববৈচিত্র্য হুমকির মুখে : ইউএনডিপি •মর্যাদার লড়াইয়ে আজ মুখোমুখি ভারত ও পাকিস্তান •সংসদে জাতীয় দক্ষতা উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ বিল, ২০১৮ পাস
Untitled Document

এসএসসি ও সমমান পরীক্ষার ফল প্রকাশ : পাসের গড় হার ৮০ দশমিক ৩৫ ভাগ

তারিখ: ২০১৭-০৫-০৫ ০১:০২:২৩  |  ১৫৪ বার পঠিত

0 people like this
Print Friendly and PDF
« আগের সংবাদ পরের সংবাদ»

ঢাকা,   : দেশব্যাপী অনুষ্ঠিত এসএসসি, দাখিল ও এসএসসি (ভোকেশনাল) পরীক্ষার ফল আজ প্রকাশিত হয়েছে।
৮টি সাধারণ শিক্ষা বোর্ড এবং মাদরাসা ও কারিগরিসহ মোট ১০টি বোর্ডের গড় পাসের হার ৮০ দশমিক ৩৫ ভাগ। গত বছর এই ১০ বোর্ডের গড় পাসের হার ছিল ৮৮ দশমিক ২৯ ভাগ। এবার পাসের হার কমেছে ৭ দশমিক ৯৪ ভাগ। 
এ বছর পাসের হার সবচেয়ে বেশি রাজশাহী বোর্ডে, ৯০ দশমিক ৭০ ভাগ এবং সবচেয়ে কম কুমিল্লা বোর্ডে, ৫৯ দশমিক ০৩ ভাগ।
এবারের এসএসসি ও সমমানের পরীক্ষায় ১৭ লাখ ৮১ হাজার ৯৬২ জন পরীক্ষার্থী অংশগ্রহণ করে উত্তীর্ণ হয়েছে ১৪ লাখ ৩১ হাজার ৭২২ জন। এরমধ্যে জিপিএ ৫ পেয়েছে ১ লাখ ৪ হাজার ৭৬১ জন শিক্ষার্থী। গত বছর জিপিএ ৫ পেয়েছিল ১ লাখ ৯ হাজার ৭৬১ জন। এবার ৫ হাজার শিক্ষার্থী জিপিএ ৫ কম পেয়েছে।
এবার শতভাগ পাস করা প্রতিষ্ঠানের সংখ্যাও কমেছে। এবার এ সংখ্যা ২ হাজার ২৬৬টি। গত বছর এ সংখ্যা ছিল ৪ হাজার ৭৩৪টি। এবার কমেছে ২ হাজার ৪৬৮টি। কোন শিক্ষার্থীই পাস করেনি এমন প্রতিষ্ঠানের সংখ্যা এবার ৯৩টি। গতবছর এ সংখ্যা ছিল ৫৩টি। পাস না করা প্রতিষ্ঠানের সংখ্যা বেড়েছে ৪০টি। 
আজ দুপুরে বাংলাদেশ সচিবালয়ের শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের সভাকক্ষে এক সংবাদ সম্মেলনে শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদ পরীক্ষার এ ফলাফল ঘোষণা করেন। 
এ সময় মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা সচিব মো: সোহরাব হোসাইন, মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষা অধিদপ্তরের মহাপরিচালক, শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের উর্ধ্বতন কর্মকর্তা ও বিভিন্ন শিক্ষা বোর্ডের চেয়ারম্যানগণ উপস্থিত ছিলেন।
শিক্ষামন্ত্রী আজ সকালে গণভবনে গিয়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার হাতে এসএসসি ও সমমান পরীক্ষার ফলাফলপত্র তুলে দেন। প্রধানমন্ত্রী এ সময় টেলিকনফারেন্সের মাধ্যমে দু’টি জেলার সংশ্লিষ্ট শিক্ষা কর্মকর্তা ও শিক্ষকদের সাথে পরীক্ষার ফলাফল নিয়ে কথা বলেন। 
শিক্ষামন্ত্রী সংবাদ সম্মেলনে গতবারের তুলনায় এবার গড় পাসের হার ও জিপিএ ৫ দু’ই কমার কারণ প্রসঙ্গে বলেন, পরীক্ষার খাতা মূল্যায়ন করার পদ্ধতি ত্রুটিমুক্ত করার চেষ্টার কারণে পাসের হার ও জিপিএ দু’ই কমে এসেছে।
আগে খাতা মূল্যায়ন পদ্ধতি ত্রুটিপূর্ণ ছিল উল্লেখ করে তিনি বলেন, এ ত্রুটি দূর করার জন্য গত ৩ বছর যাবত মন্ত্রণালয় কাজ করে যাচ্ছে। এবার সকল শিক্ষাবোর্ডে ২৩টি বিষয়ে সৃজনশীল পদ্ধতিতে পরীক্ষা এবং অভিন্ন মূল্যায়ন পদ্ধতিতে উত্তরপত্র মূল্যায়নের ব্যবস্থা করা হয়েছে।
নাহিদ বলেন, এবার উত্তরপত্র মূল্যায়নে অবমূল্যায়ন ও অতিমূল্যায়ন রোধে বোর্ডসমূহ বেশকিছু পদক্ষেপ গ্রহণ করে। প্রধান পরীক্ষকগণদের উত্তরমালা প্রণয়নের জন্য বিশেষ প্রশিক্ষণ প্রদান করা হয়েছে। প্রণীত নমুনা উত্তরমালার আলোকে উত্তরমালা মূল্যায়নে পরীক্ষকগণকে প্রয়োজনীয় প্রশিক্ষণ ও নির্দেশনা প্রদান করা হয়।
তিনি বলেন, উল্লেখিত ব্যবস্থা গ্রহণ করার পর এবার বেশকিছু উত্তরপত্র একাধিক পরীক্ষক দিয়ে মূল্যায়ন ও পুনঃমূল্যায়ন করা হয়েছে। এতে দেখা গেছে, আগের মতো নম্বর প্রদানে তেমন তারতম্য দেখা যায়নি। আর এ কারণেই এবার পাসের হার ও জিপিএ ৫-এ প্রভাব পরেছে। 
নাহিদ বলেন, এ বছর ঢাকা, কুমিল্লা, চট্টগ্রাম, রাজশাহী, সিলেট, যশোর, বরিশাল ও দিনাজপুর এ ৮টি সাধারণ বোর্ডের অধীনে ১৪ লাখ ২২ হাজার ৩৭৯ পরীক্ষার্থী অংশগ্রহণ করে উত্তীর্ণ হয়েছে ১৩ লাখ ২৮৪ জন। এ ৮ বোর্ডের পাসের গড় হার এবার ৮১ দশমিক ২১ ভাগ। গত বছর এ হার ছিল ৮৮ দশমিক ৭০ ভাগ। পাসের হার কমেছে ৭ দশমিক ৪৯ ভাগ। ৮ বোর্ডের এবার জিপিএ ৫ পেয়েছে ৯৭ হাজার ৯৬৪ জন, গতবছর এ সংখ্যা ছিল ৯৬ হাজার ৭৬৯ জন। এবার জিপিএ ৫ বেড়েছে ১ হাজার ১৯৫ জনের।
তিনি বোর্ডভিত্তিক পৃথক হিসাব তুলে ধরে বলেন, ঢাকা বোর্ড থেকে এবার ৪ লাখ ৪৯ হাজার ৭২৯ জন পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করে উত্তীর্ণ হয়েছে ৩ লাখ ৮৮ হাজার ৫৪০ জন। পাসের হার ৮৬ দশমিক ৩৯ ভাগ।

রাজশাহী বোর্ড থেকে এবার ১ লাখ ৬৬ হাজার ৯৩৮ জন পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করে উত্তীর্ণ হয়েছে ১ লাখ ৫১ হাজার ৪০৬ জন। পাসের হার ৯০ দশমিক ৭০ ভাগ। পাসের হার সবচেয়ে বেশি এবার রাজশাহী বোর্ডে।
কুমিল্লা বোর্ড থেকে এবার ১ লাখ ৮২ হাজার ৯৭৯ জন পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করে উত্তীর্ণ হয়েছে ১ লাখ ৮ হাজার ১১ জন। পাসের হার ৫৯ দশমিক ০৩ ভাগ। পাসের হার এবার সবচেয়ে কম কুমিল্লা বোর্ডে।
যশোর বোর্ড থেকে এবার ১ লাখ ৫৩ হাজার ৬৭৩ জন পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করে উত্তীর্ণ হয়েছে ১ লাখ ২২ হাজার ৯৯৫ জন। পাসের হার ৮০ দশমিক ০৪ ভাগ।
চট্টগ্রাম বোর্ড থেকে এবার ১ লাখ ১৭ হাজার ৮৯৭ জন পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করে উত্তীর্ণ হয়েছে ৯৯ হাজার ২২ জন। পাসের হার ৮৩ দশমিক ৯৯ ভাগ।
বরিশাল বোর্ড থেকে এবার ৯৩ হাজার ৬৭৬ জন পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করে উত্তীর্ণ হয়েছে ৭২ হাজার ৩৫৮ জন। পাসের হার ৭৭ দশমিক ২৪ ভাগ।
সিলেট বোর্ড থেকে এবার ৯৩ হাজার ৯১৫ জন পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করে উত্তীর্ণ হয়েছে ৭৫ হাজার ৩৭৪ জন। পাসের হার ৮০ দশমিক ২৬ ভাগ।
দিনাজপুর বোর্ড থেকে এবার ১ লাখ ৬৩ হাজার ৫৭২ জন পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করে উত্তীর্ণ হয়েছে ১ লাখ ৩৭ হাজার ৩৬২ জন। পাসের হার ৮৩ দশমিক ৯৮ ভাগ।
মাদরাসা বোর্ডের পাসের বিবরণ উল্লেখ করে মন্ত্রী বলেন, মাদরাসা বোর্ড থেকে এবার ২ লাখ ৫৩ হাজার ৩৪৪ জন পরীক্ষায় অংশ নিয়ে কৃতকার্য হয়েছে ১ লাখ ৯৩ হাজার ৫১ জন। পাসের হার ৭৬ দশমিক ২০ ভাগ। গতবছর পাসের এ হার ছিল ৮৮ দশমিক ২২ ভাগ। পাসের হার এবার কমেছে ১২ দশমিক ০২ ভাগ। এ বোর্ড থেকে এবার জিপিএ ৫ পেয়েছে ২ হাজার ৬১০ জন। গতবছর পেয়েছিল ৫ হাজার ৮৯৫ জন। জিপিএ ৫ এবার কমেছে ৩ হাজার ২৮৫ টি। 
কারিগরি বোর্ড থেকে এবার ১ লাখ ৬ হাজার ২৩৯ জন পরীক্ষায় অংশ নিয়ে কৃতকার্য হয়েছে ৮৩ হাজার ৬০৩ জন। পাসের হার ৭৮ দশমিক ৬৯ ভাগ। গতবছর এ হার ছিল ৮৩ দশমিক ১১ ভাগ। পাসের হার কমেছে ৪ দশমিক ৪২ ভাগ। এ বোর্ডে এবার জিপিএ ৫ পেয়েছে ৪ হাজার ১৮৭ জন, গতবছর এ সংখ্যা ৭ হাজার ৯৭ ছিল বলে তিনি জানান।
বিজ্ঞান বিভাগের পরীক্ষার্থীদের পাসের হার সবচেয়ে বেশি উল্লেখ করে শিক্ষামন্ত্রী বলেন, এবার ৮টি সাধারণ বোর্ড থেকে ৪ লাখ ২২ হাজার ১৫৫ জন পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করে উত্তীর্ণ হয়েছে ৩ লাখ ৯৪ হাজার ৭২ জন। পাসের হার ৯৩ দশমিক ৩৫ ভাগ। গত বছর এ হার ছিল ৯৫ দশমিক ৮৯ ভাগ। বিজ্ঞানে জিপিএ ৫ পাওয়া পরীক্ষার্থীর সংখ্যা এবার ৯২ হাজার ৩৮ জন। গত বর্ছ এ সংখ্যা ছিল ৮৯ হাজার ৩৮৪ জন। জিপিএ ৫ এবার বেশি পেয়েছে ২ হাজার ৬৫৪ জন।
তিনি বলেন, গতবারের তুলনায় এবার বিজ্ঞানে পরীক্ষার্থীর সংখ্যা বেড়েছে ৪৪ হাজার ৬৮১ জন এবং সেই সাথে বেড়েছে পাসের সংখ্যাও এবং তা ৩২ হাজার ১২৬ জন।
নাহিদ বলেন, এই ৮ বোর্ডে মানবিক বিভাগ থেকে এবার ৬ লাখ ৪ হাজার ৪৯৯ জন অংশগ্রহণ করে কৃতকার্য হয়েছে ৪ লাখ ৪৩ হ্জাার ৫৭৩ জন। পাসের হার ৭৩ দশমিক ৩৮ ভাগ। জিপিএ ৫ পেয়েছে ১ হাজার ১০৩ জন।
তিনি বলেন, ব্যবসায় শিক্ষা বিভাগ থেকে ৩ লাখ ৯৫ হাজার ৭২৫ জন পরীক্ষায় অংশ নিয়ে উত্তীর্ণ হয়েছে ৩ লাখ ১৭ হাজার ৪২৩ জন। পাসের হার ৮০ দশমিক ২১ ভাগ। জিপিএ ৫ পেয়েছে ৪ হাজার ৮২৩ জন। বিদেশের ৮টি কেন্দ্র থেকে ৪৩৭ জন পরীক্ষার্থী অংশগ্রহণ করে ৪১২ জন উত্তীর্ণ হয়েছে উল্লেখ করে তিনি জানান, তাদের পাসের হার ৯৪ দশমিক ২৮ ভাগ এবং ১১২ জন জিপিএ- ৫ পেয়েছে। 
এবারও ৮টি সাধারণ বোর্ডে মেয়েরা পাসের হার ও সংখ্যায় এগিয়ে আছে উল্লেখ করে নাহিদ বলেন, ৭ লাখ ১ হাজার ৬৩৭ জন ছাত্র পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করে উত্তীর্ণ হয়েছে ৫ লাখ ৬৬ হাজার ২৮৭ জন। ছেলেদের পাসের হার ৮০ দশমিক ৭১ ভাগ। আর ৭ লাখ ২০ হাজার ৭৪২ জন ছাত্রী পরীক্ষায় অংশ নিয়ে কৃতকার্য হয়েছে ৫ লাখ ৮৮ হাজার ৭৮১ জন। তাদের পাসের হার ৮১ দশমিক ৬৯ ভাগ।
তিনি বলেন, ছাত্রের তুলনায় এ বছর পরীক্ষায় ১৯ হাজার ১০৫ জন ছাত্রী বেশি অংশগ্রহণ করেছে এবং পাস বেশি করেছে ২২ হাজার ৪৯৪ জন। পাসের হার মেয়েদের বেশি শূন্য দশমিক ৯৮ ভাগ।
তবে ১০ বোর্ডের মধ্যে ছাত্রীর তুলনায় ছাত্রের সংখ্যা ও উত্তীর্ণের সংখ্যা উভয়ই বেশি উল্লেখ করে শিক্ষামন্ত্রী বলেন, এখানে ৯ লাখ ১০ হাজার ৩৩৭ জন ছাত্র পরীক্ষার্থীর মধ্যে পাস করেছে ৭ লাখ ২৭ হাজার ৬৮৮ জন। আর ৮ লাখ ৭১ হাজার ৫৮৯ জন ছাত্রীর মধ্যে পাস করেছে ৭ লাখ ৪ হাজার ৩৪ জন। কিন্তু পাসের হারের ক্ষেত্রে মেয়েরা শূন্য দশমিক ৮৫ ভাগ এগিয়ে। ছেলেদের পাসের হার ৭৯ দশমিক ৯৩ ভাগ ও মেয়েদের পাসের হার ৮০ দশমিক ৭৮ ভাগ।(বাসস)


এ পাতার অন্যান্য সংবাদ

•যোগ্য শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলোর এমপিও ভুক্তির কাজ চলছে : নাহিদ •রাজৈরে স্কুল নির্বাচন সম্পন্ন •আমতলী উপজেলায় প্রাথমিকের ৮০টি প্রধান শিক্ষকের পদ খালি, শিক্ষার বেহাল দশা •ছাত্র বৃত্তি সঠিকভাবে বিতরণের নির্দেশ প্রধানমন্ত্রীর •বাক ও শ্রবণ প্রতিবন্ধীদের জন্য ইশারা ভাষা ইনস্টিটিউট প্রতিষ্ঠা করা হবে : মেনন •ঝিনাইদহে এবার স্কুল ছাত্রীকে বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে ডেকে এনে হত্যাচেষ্টা •আমতলীতে স্কুল ছাত্রীকে যৌন হয়রানি প্রতিবাদ করায় মেয়েসহ মামাকে মারধর •ঝিনাইদহ জেলা শিক্ষক সমিতির প্রতিবাদ সভা
Untitled Document
  • সর্বশেষ সংবাদ
  • সবচেয়ে পঠিত
  • এক্সক্লুসিভ

Top
Untitled Document