/* */
   Saturday,  Jan 19, 2019   4 PM
Untitled Document Untitled Document
শিরোনাম: •স্বাধীনতা সার্বভৌমত্ব রক্ষায় সজাগ থাকতে সেনা কর্মকর্তাদের প্রতি রাষ্ট্রপতির আহ্বান •মনোনয়ন বাতিলের বিরুদ্ধে খালেদা জিয়ার আপিল ইসিতে খারিজ •মনোনয়ন না পাওয়া দলের প্রার্থীদের মহাজোট প্রার্থীর পক্ষে প্রার্থিতা প্রত্যাহারের অনুরোধ শেখ হাসিনার •নির্বাচনী প্রচারণায় ট্রাম্পকে ‘রাজনৈতিক’ সহযোগিতার প্রস্তাব দেয় রাশিয়া •টেকনোক্রেট কোন মন্ত্রী কেবিনেটে থাকছেন না : ওবায়দুল কাদের •বেগম রোকেয়া দিবস কাল •আগামীকাল থেকে ওয়েস্ট ইন্ডিজ . বাংলাদেশ। ওয়ানডে সিরিজ
Untitled Document

ফারমার্স ব্যাংক থেকে মহীউদ্দীন আলমগীরের পদত্যাগ বেসিক ব্যাংকের দুই সাবেক পরিচালককে জিজ্ঞাসাবাদ

তারিখ: ২০১৭-১১-২৯ ১৩:৩৪:০৩  |  ১২২ বার পঠিত

0 people like this
Print Friendly and PDF
« আগের সংবাদ পরের সংবাদ»

ফারমার্স ব্যাংকের চেয়ারম্যানের পদ ছেড়েছেন সাবেক মন্ত্রী মহীউদ্দীন খান আলমগীর। ব্যাংকের ব্যবস্থাপনা পরিচালক (এমডি) এ কে এম শামীমকেও অপসারণের নির্দেশ দিয়েছে বাংলাদেশ ব্যাংক।

এদিকে, প্রায় সাড়ে ৩ হাজার কোটি টাকার ঋণ জালিয়াতির ঘটনায় বেসিক ব্যাংকের সাবেক দুই পরিচালককে জিজ্ঞাসাবাদ করছে দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক)। গতকাল দুদকের প্রধান কার্যালয়ে সকাল সোয়া ১০টা থেকে বিকাল সাড়ে ৩টা পর্যন্ত পৃথকভাবে তাদের জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়। জানা গেছে, ফারমার্স ব্যাংকের পরিচালনা পর্ষদ ও নির্বাহী কমিটির চেয়ারম্যান মহীউদ্দীন খান আলমগীরের পাশাপাশি অডিট কমিটির চেয়ারম্যান মাহবুবুল হক চিশতীও পদত্যাগ করেছেন। বাংলাদেশ ব্যাংকের এক বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, তাদের পদত্যাগপত্র পরিচালনা পর্ষদ গ্রহণ করেছে। নতুন চেয়ারম্যান ও ভাইস চেয়ারম্যান নির্বাচিত হয়েছেন। একই সঙ্গে ব্যাংকটির নির্বাহী কমিটি, অডিট কমিটি ও ঝুঁকি ব্যবস্থাপনা কমিটি পুনর্গঠনের কথাও জানানো হয়েছে। এ ছাড়া ফারমার্স ব্যাংকের ব্যবস্থাপনা পরিচালক (এমডি) এ কে এম শামীমকে অপসারণের নির্দেশ দিয়েছে বাংলাদেশ ব্যাংক। ব্যাংক কোম্পানি আইনের ৪৬ ধারা অনুযায়ী তাকে অপসারণে কেন্দ্রীয় ব্যাংক থেকে চিঠি পাঠানো হয়েছে। আগামী সাত দিনের মধ্যে শামীমকে এমডি পদ থেকে কেন অপসারণ করা হবে না, তা জানতে চাওয়া হয়েছে কেন্দ্রীয় ব্যাংকের চিঠিতে।

চিঠিতে দুটি কারণ উল্লেখ করে বলা হয়েছে, ব্যাংকটিতে (ফারমার্স ব্যাংক) তারল্য ব্যবস্থাপনায় এমডি ব্যর্থ হয়েছেন। এ কারণে নগদ জমা বা সিআরআরের এবং সংবিধিবদ্ধ জমা বা এসএলআরের অর্থ রাখতে ব্যর্থ হয়েছে। কেন্দ্রীয় ব্যাংকের নির্দেশনা না মেনে ব্যাংকটি ঋণ বিতরণ করেই চলছে। দুদকের জিজ্ঞাসাবাদের মুখোমুখি হওয়া বেসিক ব্যাংকের দুই সাবেক পরিচালক হলেন মো. ফকরুল ইসলাম ও মো. শাখাওয়াত হোসেন। দুদক পরিচালক জায়েদ হোসেন খানের নেতৃত্বে একটি টিম তাদের জিজ্ঞাসাবাদ করেছে। বিষয়টি বাংলাদেশ প্রতিদিনকে নিশ্চিত করেছেন দুদক উপপরিচালক (জনসংযোগ) প্রণব কুমার ভট্টাচার্য্য। এর আগে একই ঘটনায় বেসিক ব্যাংকের সাবেক পরিচালক ও অর্থ মন্ত্রণালয়ের আর্থিক প্রতিষ্ঠান বিভাগের অতিরিক্ত সচিব কামরুন্নাহার এবং সাবেক পরিচালক অধ্যাপক ড. কাজী আখতার হোসেনসহ বেশ কয়েকজন পরিচালককে জিজ্ঞাসাবাদ করে দুদক। বেসিক ব্যাংক কেলেঙ্কারিতে ২০১৫ সালের ২১, ২২ ও ২৩ সেপ্টেম্বর তিন দিনে টানা ৫৬টি মামলা করে দুদকের অনুসন্ধান দলের সদস্যরা। মামলায় মোট আসামি করা হয় ১৫৬ জনকে।

তিনটি নতুন ব্যাংক অনুমোদন দেওয়া হবে : অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত বলেছেন আরও তিনটি নতুন ব্যাংক অনুমোদন দেওয়া হবে। গতকাল ঢাকা ক্লাবে ‘প্রটেক্টিং পুওর : এমার্জিং মাইক্রো ইন্সুরেন্স মার্কেট ইন দ্য সাউথ এশিয়া’ শীর্ষক অনুষ্ঠান শেষে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে একথা বলেন তিনি।

মন্ত্রী বলেন, আমাদের অনেক ব্যাংক আছে, কিন্তু তারপরও প্রচুর অঞ্চল ব্যাংক সেবার বাইরে আছে। এ কারণেই নতুন ব্যাংকের অনুমোদন দেওয়া হচ্ছে। সমস্যা সমাধানে কয়েকটি ব্যাংক একীভূত করার চেষ্টা চলছে জানিয়ে অর্থমন্ত্রী বলেন, ব্যাংকগুলোর তারল্য সঙ্কট কাটাতেও সরকার কাজ করছে।  bangladesh pratidin 


এ পাতার অন্যান্য সংবাদ

•আইয়ুব বাচ্চুর মৃত্যুতে শোক রাষ্ট্রপতির •আগামী নির্বাচনে সকল দল অংশ নেবে : প্রধানমন্ত্রী •শ্রেষ্ঠ বিট অফিসার নির্বাচিত হয়েছেন কলাপাড়া থানার এস আই নাজমুল ॥ •রোহিঙ্গা সংকট নিয়ে ঢাকায় বিশ্ব নেতারা •মানবসম্পদ উন্নয়নে জাপান ৩৪ কোটি টাকার অনুদান দেবে •বিপন্ন রোহিঙ্গারা স্থানীয় জনগণের সহযোগিতা পাচ্ছে : প্রধানমন্ত্রী •নিরাপত্তা বেষ্টনী কর্মসূচিতে বিশ্ব ব্যাংকের অতিরিক্ত ২৪৫ মিলিয়ন মার্কিন ডলার প্রদানের চুক্তি স্বাক্ষর মঙ্গলবার •রাষ্ট্রের তিন বিভাগের মধ্যে ঐক্যের আহ্বান রাষ্ট্রপতির
Untitled Document
  • সর্বশেষ সংবাদ
  • সবচেয়ে পঠিত
  • এক্সক্লুসিভ

Top
Untitled Document